কেন জার্মানি-৪? “টাকা মাটি, মাটি টাকা”

 

জার্মানিতে কেন যেতে চাই, অথবা সাধারণভাবে বিদেশে কেন যাব –এই প্রশ্নের জবাবে সবার মাথার ভেতরেই প্রথমে টাকার চিন্তা আসে।তবে, বিদেশ মানেই টাকা –এই ভাবনার বাইরেও অনেকগুলো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়াদি মাথায় রাখা প্রয়োজন।এই সিরিজের লেখাতে তাই টাকা প্রসঙ্গ অনেক পরে আসল। আপাতত দেখা যাক, জার্মানিতে কে কেমন আয় করার স্বপ্ন দেখতে পারে। এখানে উল্লেখ্য, এই ধরনের কোন অফিশিয়াল পরিসংখ্যান কোথাও পাওয়া যাবে না। এই পর্বটি জার্মানিতে বিভিন্ন সেক্টরে অনেক বছরের চাকুরী, ব্যবসা এবং জার্মানদের কাছ থেকে দেখার একান্ত ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা আলোকে লেখা।

পিএইচডিঃ

আমাদের ক্লাসের দুর্দান্ত এক ছাত্রবন্ধুর গল্প। পাশ করে আমেরিকায় বিশাল স্কলারশিপ নিয়ে মাস্টার্স করতে গেছে। তারপর ফাটাফাটি রেজাল্ট করে আবার পিএইচডি শুরু করেছে। আমিও এমন একটা সময়ে জার্মানিতে পিএইচডি অফার পেয়েছি, কথায় কথায় সেই বন্ধুর সাথে একদিন টেলিফোনে আলাপ। সুখ দুঃখের অনেক কথার পর পিএইচডি-র টাকা পয়সা সুযোগ সুবিধে নিয়ে আলোচনা হচ্ছিল। যা শুনলাম তাতে আমার প্রায় শিউরে ওঠার দশা (অবশ্য বন্ধুকে সেটা বুঝতে দেই নাই)।

সেই বন্ধু পিএইচডিতে মাস শেষে ১৫০০ ডলার পায়, টিউশন ফি দিতে হয়না এতেই খুশি। অনেক ছেলেপেলে নাকি তাও পায় না। একটু কষ্ট করতে হয় অবশ্য, মাঝে মাঝে নাকি শনি রবিবারেও কাজ পড়ে, সপ্তাহে ৫০-৬০ ঘণ্টা কাজ। বছরে ছুটি হাতে গনা ১০-১২ দিন। কিন্তু খুব ভাল প্রফেসর, বেশ ভাল আছে ইত্যাদি ইত্যাদি।

জার্মানিতে ফুল পিএইচডিতে বেতন মাসে প্রায় ৩,৩০০ থেকে ৪ হাজার ইউরোর মতন, ডলারে ৫ হাজারের বেশি হবে। তবে সবচেয়ে বড় পার্থক্য অন্য জায়গায়, সেটা হল বছরে ৩০ দিন পেইড ছুটি। আর সপ্তাহে ৩৫-৪০ ঘণ্টার বেশি কাজ করতে হবে এমন কোন বাধ্যবাধকতা নেই।

বিভিন্ন সেক্টরের প্রাথমিক বেতন

ঠিক তুলনা করাটা উদ্দেশ্য নয়, তবে জার্মানিতে ফুল টাইম পিএইচডি-র সুযোগ সুবিধে অনেকেরই জানা নেই-এইটাই মূল বক্তব্য।

স্টুডেন্ট জবঃ

জার্মানিতে যোগ্য ছাত্ররা ঘণ্টায় ১৫ ইউরো পর্যন্ত আয় করে থাকে। আমি ম্যাকডোনাল্ডে বা পেট্রল পাম্পে কাজের কথা বলছি না। জার্মানিতে ছাত্রদের জন্য অসংখ্য রিসার্চ জব আছে, এখানে আছে বড় বড় কোম্পানিতে স্টুডেন্ট জব করার অপশন। ছুটির সময় ছেলে পেলেরা (যোগ্যতা আছে এমন) মাসে হেসে খেলে ১৫০০ থেকে ২০০০ হাজার ইউরো আয় করে। মাস্টার্স লেভেলে যে কটা যোগ্য ছেলেমেয়েকে চিনি, এরা ছাত্র অবস্থায় এখানকার আয় দিয়ে নিজের খরচ চালিয়ে দেশেও টাকা পাঠিয়েছে।

ছাত্রদের গড় আয়ের পরিসংখ্যান

ফুল্টাইম জবঃ

অন্য দেশের উপার্জনের তেমন কোন তথ্য আমার জানা নেই। জার্মানিতে একজন ইঞ্জিনিয়ার বছরে ৪০-৫০ হাজার ইউরো দিয়ে শুরু করে। পাঁচ বছর কাজ করেছে এমনদের বেতন বছরে ৭০-৮০ হাজারের মতন। আর সবচেয়ে বড় সুবিধে, ৩০ দিন ছুটি বছরে। কাজ করতে হয় সপ্তাহে গনে গনে ৩৫ থেকে ৪০ ঘণ্টা।

অন্যান্য সেক্টরের বেতন ভাতা

ইঞ্জিনিয়ারদের থেকে কম কিছু নয়। ডাক্তাররা একটু কম বেতন দিয়ে শুরু করলেও নিজস্ব চেম্বার দেবার পর এদের গড় আয় বছরে ১৫০০০০ থেকে ৩০০০০০ ইউরোর মতন।

বিজনেস লাইনে একটু বড় ম্যানেজার লেভেলের লোকজন ৮০/১০০ হাজার থেকে বেতন শুরু করে।

উকিল বা নোটারদের ফি দেখে মাথায় হাত দিয়েছিলাম একবার। এরা ঘণ্টায় ৫০০ ইউরো পর্যন্ত পায়, বাকি হিসেব আর করে দেখিনি।

পরিশেষে বলতে চাই

জীবন মানে শুধু টাকা নয়। প্রথমবার কাজ খুঁজতে গেলে এক সময় মাথার মধ্যে শুধু টাকার চিন্তা থাকত। কত টাকা বেতন পাব, কত টাকা হাতে থাকবে, কত টাকা দেশে পাঠাতে পারব, কত টাকা মাস শেষে ব্যাঙ্কে জমবে। কাজ শুরু করার পর বুঝতে শুরু করলাম, শুধু টাকা দিয়ে কিছু হয় না। যেখানে কাজ করছি, সেখানের পরিবেশ, কত ঘণ্টা দিনের শেষে শুধুমাত্র নিজের জন্য অবসর পাচ্ছি, চাকরিতে বেতন কম বেশির চেয়ে চাকরি কত দিনের জন্য নিরাপদ –সেটা একসময় বেশি গুরুত্বপূর্ণ মনে হয়েছে। এক সময় কালের পরিক্রমায় যখন পরিবার গঠনের সময় এসেছে, তখন টাকার চেয়ে কাজের বাইরে কতটুকু সময় পরিবারকে দেবার জন্য পাওয়া যাবে, কিংবা বছরে কতদিন ছুটি পাওয়া যাবে – এই বিষয়গুলো বেশি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে সামনে এসে দাঁড়িয়েছে। জার্মানিতে অন্যান্য দেশের তুলনায় বেশি টাকা কামাই করা সম্ভব কিনা- এই প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানা না থাকলেও, এই দেশে যতটুকু জীবনের জন্য প্রয়োজন, তার চেয়ে বেশিই আয় করা সম্ভব –এই গ্যারান্টি দিতে পারি। একই সাথে বলা যায়, চাকরির নিরাপত্তা, সামাজিক সুযোগ সুবিধা, অবসর সময়, বাৎসরিক ছুটি –এইসব ব্যাপারে জার্মানি পরিচিত আমেরিকা, ইংল্যান্ড, কানাডা বা অস্ট্রেলিয়ার মতন গন্তব্যগুলোর চেয়ে অনেক অনেক বেশি আকর্ষণীয়।

সংবিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ:

এই পোস্টে সবার লাফালাফি করার কিছুই নাই। তবে যোগ্য লোকেরা এখানে যোগ্য সন্মানী পান, এইটাই মদ্দা কথা।
যোগ্য লোক = যে কোন একটি বিষয়ে জ্ঞানী এবং সেই জ্ঞানের বাস্তব প্রয়োগ জানে + জার্মান ভাষায় পারদর্শী + আত্মবিশ্বাসী + পরিশ্রমী।

আদনান সাদেক, ২০১৪

কেন জার্মানি-১ “জীবনের জন্য প্রযুক্তি, প্রযুক্তির জন্য জীবন নয়”

কেন জার্মানি-২ “কেন জার্মানি? জীবনের জন্য কাজ, কাজের জন্য জীবন নয়”

কেন জার্মানি-৩? “পরিবার মুখী সমাজ এবং জীবন ব্যবস্থা”

#BSAAG_why_Germany

জার্মানিতে উচ্চশিক্ষা বা ক্যারিয়ার সংক্রান্ত প্রশ্নের জন্য যোগদিন বিসাগের ফেসবুক ফোরামেঃ www.facebook.com/groups/bsaag.reloaded
জার্মান ভাষা অনুশীলন এবং প্রশ্নোত্তের জন্য যোগ দিন ফেসবুকে বিসাগের জার্মান ভাষা শিক্ষা গ্রুপেঃ www.facebook.com/groups/deutsch.bsaag

Print Friendly, PDF & Email
Adnan Sadeque
Follow me

Adnan Sadeque

লেখকের কথাঃ
http://bsaagweb.de/germany-diary-adnan-sadeque

লেখক পরিচয়ঃ
http://bsaagweb.de/adnan-sadeque
Adnan Sadeque
Follow me