জার্মানিতে তাপমাত্রার রেকর্ড

 

এই গ্রীষ্মে, জার্মানিতে তাপমাত্রার রেকর্ড হতে যাচ্ছে! আবহাওয়া ফোর্কাস্ট থেকে জানা যায় তা ৪০ ডিগ্রি ছাড়িয়ে যেতে পারে।

গরমের দিনে ঘামের মাধ্যমে আমাদের শরীর থেকে প্রচুর পরিমান পানি বেরিয়ে যায়। যা আপনার শরীরে ডিহাইড্রেশন তৈরী করবে। এই ঘাটতি পূরণের জন্য আপনাকে বেশি বেশি পানি পান করতে হবে। অনেকে জুস, স্যালাইন বা গ্লুকোজ পানি পছন্দ করেন। তবে সাধারন যে মিনারেল ওয়াটার, সেটাই সবচেয়ে ভালো। বাইরে বের হওয়ার সময়ও পানির বোতল নিতে ভুলবেন না। আর এড়িয়ে চলবেন সোডা জাতীয় কোমল পানিও, কারণ এগুলো ডিহাইড্রেশনকে আরো ত্বরান্বিত করে।

এছাড়াও সাধারণত বাংলাদেশের মত সিলিং ফ্যান এর ব্যবস্থা জার্মানিতে নেই। তাই টেবিল ফ্যানই ভরসা। জার্মান ভাষায় একে বলা হয় Tisch-/Wand-Ventilatorকেও কিনতে চাইলে এই লিঙ্কে গিয়ে ঘুরে আসতে পারেন।

994252_10151781436295730_292593982_n

গরমের সময়ে সঠিক খাবার নির্বাচন করাটা খুবই জরুরী। এসময় সালাদ, ফলমূল, শাক-সবজি এবং হালকা খাবার খাওয়াই উত্তম। আপনি যতো ভারী এবং অতিরিক্ত রান্না করা খাবার শরীরে বেশি তাপ এবং পানি শূণ্যতা তৈরী করে। এ ধরণের খাবার এড়িয়ে চললে গরম থেকে অনেকটা মুক্তি মিলবে।

– জাঙ্ক ফুড, ফাস্ট ফুড এড়িয়ে চলুন।
– এমন খাবার খুজে বের করুন যা রান্না করার প্রয়োজন হয়না।
– গরম আবহাওয়ায় ঠান্ডা স্যুপ খুবই ভাল একটি পথ্য। আপনি আজই এটি চেষ্টা করে দেখুন, শরীর নিমিষেই ঠান্ডা হয়ে যাবে।

গরমের মধ্যে কাজ করতে হলে কখনো তাড়াহুরো করবেন না। আগে গরমের সাথে মানিয়ে নিয়ে একটু একটু করে কাজের গতি বাড়ান। এতে গরমের অস্বস্তিবোধ অনেকটাই কমে যাবে।

তথ্যসূত্রঃ BILD.de এবং rupcare.com

Print Friendly