জার্মান ভিসা ইন্টার্ভিউ টিপস

 

আমার ভিসা হওয়ার পর যখন বিসাগ গ্রুপে পোস্ট দিলাম এরপর থেকে প্রতিদিন কিছু না কিছু মেসেজ পাই। কেউবা এই সেমিস্টার এ আবেদন করছে, কেউবা ভবিষ্যতে করবে। আমি সাধ্যমত তাদের সঠিক ইনফরমেশন দেয়ার চেষ্টা করি। এমন অনেকেই আবার মেসেজ দেয় যারা রিজেক্টেড হয়েছে। তাদের একটাই কথা ভাইবা ভাল হওয়ার পরও ভিসা কেন হল না। এটা নিয়ে ভাবছিলাম কিছু লিখব। সময় করে উঠতে পারছিলাম না। তাই আজকে লিখতে বসলাম।

নিচের কিছু বিষয়ের দিকে যদি আপনি খেয়াল রাখেন তাহলে অবশ্যই আপনার ভিসা হবে। আমি সেই বিষয়গুলো নিয়েই আজকে বলব।

১। ধরুন আপনি নিজ এলাকা ছেড়ে অন্য কোথাও যাবেন। আপানর প্রথম কাজটাই হবে সেই জায়গা সম্পর্কে সম্যক ধারণা নেয়া। ভিসা ইন্টার্ভিউতে আপনাকে অবশ্যই তারা সিটি সম্পর্কে জিজ্ঞেস করবে। এই যেমন সিটির কালচার, দর্শনীয় যায়গা, সিটির কাছাকাছি অন্য সিটির নাম, কোন স্টেট এ এটা। মাঝেমাঝে ম্যাপ এ সিটিটা খুঁজে বের করতেও বলে। এগুলো বের করা কিন্তু কোন কঠিন কাজ না। গুগোল করলেই বের হয়ে আসে। এই কষ্টটুকু করতেই হবে আপনাকে।

২। ইউনিভার্সিটি এবং যে কোর্সে যাচ্ছেন তা সম্পর্কে ধারণা থাকাটাও কিন্তু জরুরি। যেমন ইউনিভার্সিটি কেমন, র‍্যাঙ্কিং, ফ্যাসিলিটি, কেন আপনি পড়াশোনার জন্য জার্মানিকেই পছন্দ করলেন, কোর্স মডিউল, আপনার অনার্স এর মেজর এর সাথে রিলেভেন্সি, কেন এই সাবজেক্টে পড়তে যাচ্ছেন। আমার ইন্টার্ভিউতে তারা কোর্স মডিউল জিজ্ঞেস করেছিল। এটা হচ্ছে আপনি ব্যাচেলর বা মাস্টার্স এ কি কি কোর্স ওখানে পরবেন সেটাই। ইদানীং দেখেছি অনেককেই ইন্টার্ভিউ তে মোটিভেশন লেটার টাইপ এর প্যারাগ্রাফ লিখে জমা দিতে বলে। কারণ তারা ভাইবাতে উপরের ব্যাপারগুলোর সন্তোষজনক ব্যাখ্যা দিতে পারেনি। আপনার সাবজেক্ট এর জব ফিল্ড সম্পর্কেও ব্যাখ্যা করা লাগতে পারে। যারা দেশে মাস্টার্স করে আবার ওখানে মাস্টার্স এ যাচ্ছেন তাদের ২য় মাস্টার্স করার কারণ ব্যাখ্যা করা লাগতে পারে। যেমন আমাকে এ সম্পর্কে বলতে হয়েছিল। কিছুদিন আগে একটা রিজেকশন এর কারণ দেখেছিলাম স্টাডির প্রতি সিরিয়াসনেস না থাকা। আপনার ইন্টার্ভিউতে যদি তারা বুঝে যায় আপনি পড়াশোনার প্রতি সিরিয়াস না, তাহলে আপনাকে ভিসা দেয়ার কোন প্রশ্নই আসে না। আপনাকে তাদের বুঝাতে হবে আপনি পড়াশোনার জন্যই যাচ্ছেন, অন্যকিছুই না।

৩। একোমডেশনও একটা মেজর ফ্যাক্ট ভিসার ব্যাপারে। Studentenwerk এ শুরুতে সাধারণত সবাই ওয়েটিং এ থাকে। এই মেইলটা নিয়ে যাবেন। ইয়ুথ হোস্টেল বা ফ্ল্যাট যেখানেই বুকিং দেন না কেন ওটার মেইল কপিটাও নিয়ে যাবেন। যদি কোথাও না হয় তাহলে আপনি যে ট্রাই করেছেন তার জন্য রেজেক্টেড মেইলগুলোই নিয়ে যান এবং তাদের বলুন আপনি ওখানে গিয়ে অবশ্যই বাসা ম্যানেজ করে নিবেন।

৪। আপনি জার্মান বা ইংরেজি যে মাধ্যমেই পড়তে যান না কেন, আপনাকে অবশ্যই সে ভাষাটা ভাল জানা থাকতে হবে। এমব্যাসির নতুন রুল অনুযায়ী তারা আপনার ভাষা দক্ষতাও যাচাই করবে। তার মানে এই না আপনাকে পুরোপুরি ফ্লুয়েন্ট হতে হবে। দরকার হলে আপনি কিছু সময় নিয়ে গুছিয়ে কথা বলুন। লিসিনিং স্কিলও ভালো থাকা জরুরী। আপনি যে মাধ্যমে পড়তে যাবেন আপনার ইন্টার্ভিউ সে ভাষাতেই হবে। আপনি যদি প্রশ্নই বুঝতে না পারেন সেটা আপনার জন্যই খারাপ।

৫। ইদানীং কিছু কিছু ব্যাংক এর ব্লক সার্টিফিকেট রিজেক্টেড হচ্ছে। যেমনঃ UCBL। কারণ এসব ব্যাংকে আপনি ৭৯০৮ ইউরো এর কম টাকা ব্লক করে সার্টিফিকেট নিতে পারবেন। এই বিষয়টা এমব্যাসি জানে। তাই এসব ব্যাংক থেকে ভুলেও সার্টিফিকেট নিয়ে ইন্টার্ভিউতে যাবেন না। ইস্টার্ন ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, কমার্শিয়াল ব্যাংক অফ সিলন এর ভালো রেপুটেশন আছে। ওগুলো থেকে করাতে পারেন। ওরা খুব সুন্দর করে এটা হ্যান্ডল করে।

৬। আপনি আপনার সম্পর্কে যাই বলেন না কেন চেষ্টা করবেন এর সাপোর্টিং ডকুমেন্ট যাতে আপনার কাছে থাকে। একটা উদাহরণ দেই। আমি যখন বললাম আমি দেশে একবার মাস্টার্স করেছি, তখন তারা আমার কাছে প্রুফ চাইল। কিন্তু আমি দেখাতে পারিনি। তারা বলল হয় ভার্সিটি থেকে কোন প্রত্যয়ন পত্র, ভর্তির রিসিট কিছু একটা দিতে। পরে আমাকে ১দিন সময় দিয়েছিল এটা জমা দেয়ার জন্য। পরে বাসায় গিয়ে দেখলাম আমার কাছে মাস্টার্স এর প্রবেশ পত্র আছে। ওইটাই জমা দিয়ে দিলাম।

ইন্টার্ভিউ এর কোন স্টেপ এই মিথ্যা বলবেন না। মনে রাখবেন, আপনি যদি চালাক হন তাহলে ওরা আপনার চেয়ে ১০০ গুন চালাক। আপনার মত হাজার হাজার এপ্লিকেন্ট ওরা নিয়মিত হ্যান্ডল করে।

এই লেখাটুকুর পুরোটাই আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে লেখা। হয়ত অনেক কিছুই মিসিং আছে। কমেন্ট করলে উত্তর দেয়ার চেষ্টা করব ইনশাল্লাহ। আর আমি যদি না জানি, যারা জানেন তারা হয়ত উত্তর দিবেন। ধন্যবাদ।

লেখকঃ মুযযাম্মিল-ই- হামীম

Print Friendly, PDF & Email
Adnan Sadeque
Follow me

Adnan Sadeque

লেখকের কথাঃ
http://bsaagweb.de/germany-diary-adnan-sadeque

লেখক পরিচয়ঃ
http://bsaagweb.de/adnan-sadeque
Adnan Sadeque
Follow me