জার্মানিতে লেখাপড়া করা এবং থাকা

 

ক্রমেই আরো বেশি বিদেশি ছাত্র পড়াশুনা শেষ করার পর জার্মানিতে থেকে যাচ্ছে৷ এবং তারা যে এখানে চাকরি পাচ্ছে, তার মূল কারণ হল, জার্মানিতে উচ্চশিক্ষার সঙ্গে তাদের সংযোগ৷

কোলোনের জার্মান অর্থনীতি গবেষণা প্রতিষ্ঠান আইডাবলিউ-র একটি সাম্প্রতিক জরিপের ফলাফল থেকে দেখা যাচ্ছে যে, যে সব বিদেশি-বহিরাগত জার্মানিতে পড়াশোনা করেছেন, তাদের ভালো বেতনের চাকরি পাবার সম্ভাবনা অনেক বেশি৷ কেননা তথাকথিত ‘‘শিক্ষিত বিদেশি”-রা সাধারণত যে ধরনের বিষয় নিয়ে পড়াশুনা থাকেন, যে ধরনের কোয়ালিফিকেশন সংগ্রহ করেন, জার্মান কোম্পানিগুলি বিশেষ করে সেগুলির খোঁজে৷

ইঞ্জিনিয়ারিং, গণিতশাস্ত্র ও বিজ্ঞানের অন্যান্য বিষয় – জার্মানির মাঝারি মাপের শিল্পসংস্থাগুলি এই সব বিষয়ে দক্ষ কর্মীদেরই খোঁজ করে থাকে৷ জার্মানিতে সে ধরনের কর্মীদের চাহিদা যে ভাবে বেড়ে চলেছে, তার তুলনায় কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়গুলি থেকে স্নাতকের সরবরাহ পর্যাপ্ত নয়৷ এ ক্ষেত্রে যে সব বিদেশিরা এ দেশে পড়াশোনা সমাপ্ত করছেন, তারা একটা সমাধান হতে পারেন বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা৷

  • Deutschkurs © Doc RaBe #37520730

    জার্মান ভাষা জানার বিকল্প নেই

    যদি ভাষা জানেন, সুবিধা পাবেন

    যে কোনো দেশে থাকতে হলে সে দেশের ভাষা জানা খুবই জরুরি৷ তা না হলে নিজের যোগ্যতা প্রমাণ করার তেমন কোনো সুযোগই থাকেনা৷ ভাষা না শেখার কারণে খালিদ, আইচো, শিরিয়া, আরিয়ানা বা রাইসার মতো অনেকেই নিজের দেশে চেয়ার টেবিলে বসে কাজ করলেও জার্মানিতে শ্রমিকের কাজ করতে হচ্ছে৷

আনন্দের কথা, জার্মানির কলেজ-ইউনিভার্সিটিগুলি বিদেশি ছাত্রদের কাছে খুবই আকর্ষণীয় – দৃশ্যত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ব্রিটেনের পরেই৷ এছাড়া বিদেশিরা যারা বিদেশ থেকে জার্মানিতে পড়াশুনা করতে আসেন, তারা এখানেই থাকতে চান৷ জার্মানিতে যারা পড়াশুনা করেছেন, এমন বিদেশিদের ৮০ শতাংশের জার্মানিতে থাকতে ও বাস করতে কোনো আপত্তি নেই – বরং সেটাই তাদের কাম্য৷ তাদের এক-তৃতীয়াংশ তিন বছর কিংবা তার বেশি সময়ের জন্য জার্মানিতে থেকে যাওয়ার কথা ভাবেন৷

যার ফলশ্রুতি বাস্তবেও পরিলক্ষণ করা যাচ্ছে৷ যে সব ‘শিক্ষিত বিদেশিরা’ জার্মান কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছেন, তাদের অর্ধেকেই এখানে থেকে যান৷ যে কারণে রাজ্য সরকারগুলিও এই সব বিদেশিদের স্থানীয় কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করার ফলে রাজ্যকে যে ব্যয় বহন করতে হচ্ছে, সে বিষয়ে উচ্চবাচ্য করে না৷ তবে সমস্যাও যে নেই, এমন নয়৷

যেমন বিদেশি ছাত্রদের মধ্যে পড়াশোনা সমাপ্ত না করার প্রবণতা কিছুটা বেশি, যার একটা কারণ জার্মান ভাষায় উপর তাদের অপর্যাপ্ত দখল হতে পারে৷ এছাড়া পড়াশোনা সমাপ্ত হবার সঙ্গে সঙ্গে অনেকেরই ভিসা শেষ হয়ে যায়৷ কাজেই তাদের শীঘ্র পড়াশোনা শেষ করার কোনো তাগিদ থাকে না৷

dw.de

Print Friendly