যে সাতটি জার্মান পণ্য ‘অমর’

 

জার্মানি বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম রপ্তানিকারক দেশ এমনিতেই হয়নি৷ দেশটির বিভিন্ন উদ্ভাবন গোটা বিশ্বে সাড়া জাগিয়েছে৷ কিছু উদ্ভাবন হয়ত পুরনো হয়ে গেছে, কিন্তু সেগুলোর ভিত্তিতে গড়ে উঠেছে বড় ব্যবসা৷

সবসময় দাদিদের পারফিউম

1

জার্মানির অধিকাংশ মানুষ মনে করেন ‘৪৭১১ ও ডি কোলন’ হচ্ছে দাদিদের পারফিউম৷ মজার ব্যাপার হচ্ছে, প্রজন্মের পর প্রজন্ম একথা বলছে৷ অর্থাৎ তারাও সেটা ব্যবহার করছে৷ কোলনে তৈরি এই পারফিউমটি বিক্রি হচ্ছে সেই আঠারো শতক থেকে৷

দি জেডথ্রি কম্পিউটার

2

বিশ্বের প্রথম প্রোগ্রামেবল ডিজিটাল কম্পিউটার – জেডথ্রি তৈরি করেছেন জার্মান কম্পিউটার পাইওনিয়ার কনরাড সুসে৷ ১৯৪১ সালে এটি তৈরি করেন তিনি৷

কর্কের স্যান্ডেল

3

বিএমডাব্লিউ যুক্তরাষ্ট্রেও কিংবা ফল্কসভাগেন চীনেও তৈরি হয়, কিন্তু বিয়র্কেনস্টক স্যান্ডেল শুধু জার্মানিতে তৈরি হয়৷ গত ২৩০ বছর ধরে চাহিদা ধরে রেখেছে এই স্যান্ডেল৷ ১৯৬০ সাল থেকে বিদেশে, বিশেষ করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে রপ্তানি হচ্ছে এগুলো৷

এমপিথ্রি ফাইল ফরম্যাট

4

গত দশকের আশির দশকে ডক্টরাল স্টুডেন্ট হিসেবে ডিজিটাল মিউজিক নিয়ে কাজ করেছিলেন কার্লহাইনৎস ব্রান্ডেনবুর্গ৷ তাঁর এবং অন্যদের কাজের ভিত্তিতে ১৯৯৪ সালে প্রথম সফটওয়্যার এমপিথ্রি এনকোডার প্রকাশ করে ফ্রাউয়েনহোফার ইন্সটিটিউট৷ এরপর গোটা বিশ্বের জনপ্রিয়তা পায় এই ফরম্যাট৷

অ্যাসপিরিন

5

বায়ার এজি ১৮৯৭ সালে একটি কৃত্রিম মেডিসিন তৈরি করে এবং নাম দেয় অ্যাসপিরিন৷ প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পর ফ্রান্স, রাশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র এবং যুক্তরাষ্ট্রে এটির ট্রেডমার্ক হারায় বায়ার৷ তবে এখনো ৮৩টির বেশি দেশে অ্যাসপিরিনের ট্রেডমার্ক প্রতিষ্ঠানটির রয়েছে৷

স্পার্ক প্লাগ

6

একজন ফরাসি ইলেকট্রিক স্পার্ক প্লাগ আবিষ্কার করেছিলেন৷ তবে জার্মানির রবার্ট বশ ১৮৯৮ সালে প্রথম স্পার্ক প্লাগ নির্ভর সম্পূর্ণ অটোমোটিভ ইগনিশেন সিস্টেম তৈরি করে৷ বর্তমানে বিশ্বে অটোমোটিভ ইন্ডাস্ট্রিতে কম্পাউন্ড সরবরাহের ক্ষেত্রে অন্যতম হচ্ছে বশ৷

কুকু ক্লক

7

১৮ শতকের মাঝামাঝি সময়ে জার্মানির ব্ল্যাক ফরেস্ট অঞ্চলে কুটির শিল্পে পরিণত হয় কুকু ক্লক৷ এরপর তাতে বিভিন্ন সময় নতুন নতুন ডিজাইন যোগ হয়েছে৷ তবে শব্দ করার যে পদ্ধতি তাতে পরিবর্তন আসেনি৷ এখনো ব্যাপক হারে বিক্রি হচ্ছে এই ঘড়ি৷

 

সংকলনঃ শফিকুর রহমান

সুত্রঃ ডয়েচ ভেলে বাংলা

Print Friendly, PDF & Email