খন্ডকালীন চাকরী বা স্টুডেন্ট জব

 

 

  • আপনার পড়াশোনা চলাকালীন অর্থ উপার্জন:

পড়াশোনা চলাকালীন  সময় অর্থ উপার্জন করার অনেক সম্ভাবনা আছে। আপনি “Schwarzes Brett” (নোটিশ বোর্ড) ক্যাম্পাসে বা আপনার বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে চাকরীর বিজ্ঞাপন পেতে পারেন। জার্মান ভাষা জানলে কাজ পাওয়ার সম্ভাবনা উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেতে পারে। আপনি কত সময় কাজ করার অনুমতি পাবেন তার আইনি বিধান মেনে চলা নিশ্চিত করুন।

 

 

১)তহবিল এবং আর্থিক সহায়তা

২)জার্মানিতে নতুনদের জন্যঃ “ফিউচার ইজ নট ইক্যুয়াল টু পাস্ট -২০১৭”

৩)স্বপ্ন বনাম বাস্তবতা (সাক্ষাৎকার-৩ঃ সাজ্জাদ, কেম্পটেন)

৪)জার্মানির ডায়েরিঃ২১ “উপলব্ধি”

 

 

  • চা্করীর ধরণ এবং ভাষা দক্ষতাঃ

আপনার পড়াশোনা সম্পন্ন করার সময় একটি আদর্শ উপায় হল আপনার বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি ইনস্টিটিউট, লাইব্রেরী বা অন্য কোনও সংস্থায় চাকরি নেওয়া। কফিশপ এবং রেস্তোরাঁয় ও কাজ করতে পারবেন। অনেক শিক্ষার্থীরা বাণিজ্য মেলাগুলিতে দর্শকদের সাথে যান, ডেলিভারি ড্রাইভার বা কুরিয়ার সরবরাহকারী হিসেবে কাজ করে অথবা ক্লিনার হিসাবে  কাজ করা, বাচ্চাদের দেখাশোনা করা, কফির দোকানে ইত্যাদি কাজ করে থাকে। চাকরী পাওয়ার সম্ভাবনা উল্লেখযোগ্যভাবে নির্ভর করে  জার্মান ভাষার উপর আপনার দক্ষতা কতটুকু তার উপর?

আপনি একটি চা্করী খুঁজছেন, “Schwarze Bretter” চেক আউট যেখানে অনেক তথ্য এবং বিজ্ঞপ্তি থাকে।এইটা সাধারণগত বিশ্ববিদ্যালয়, লাইব্রেরি বা সুপারমার্কেটে থাকে। অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের জন্য কাজের খোঁজখবর প্রদানের সেবাও রয়েছে। আরও তথ্যের জন্য, আপনার শহরের মধ্যে আপনার Studentenwerk বা ফেডারেল নিয়োগ সংস্থার সাথে যোগাযোগ করুন।

 

 

  • উপার্জিত অর্থের পরিমাণঃ

খন্ডকালীন  সময় কাজ করে কি পরিমান  উপার্জন করতে পারবেন তা  মূলত আপনার পূর্ব জ্ঞান, অঞ্চল, শাখা এবং আপনি  যেখানে কাজ করতে চান তার উপর নির্ভর করে। সঠিক ভাবে বলতে গেলে মিউনিখ, হামবুর্গ বা কোলন এর মত ব্যয়বহুল শহরে বেশী অর্থ উপার্জন করতে পারবেন , কিন্তু আপনাকে এইজন্য ভাড়া এবং খাদ্য খরচ ও বেশী বহন করতে হবে।আপনি যখন সুপারমার্কেট বা ফাস্ট ফুড রেস্তোরাঁতে ক্যাশিয়ার এর কাজ করে প্রতি ঘন্টায় প্রায় ছয় ইউরোর মত উপার্জন করবেন,তখন চাইলে আপনি একটি অফিসে বা প্রচারক হিসাবে কাজ করে প্রতি ঘন্টায় দশ ইউরো উপার্জন করতে পারবেন। যাই হোক না কেন এবং আপনি যে সিদ্ধান্তই বা নেন না কেন আপনার পড়াশোনা চলাকালীন সময় একটি খন্ডকালীন কাজ করে  আপনার জীবন চালানো যেমন অসম্ভব নয় তেমনি অতটা সহজ ও নয়!

  • আইনি বিধান:

এমন আইনী বিধান আছে যা আন্তর্জাতিক ছাত্ররা কতসময় কাজ করতে পারবে তার অনুমতি দেয়।এই বিধান আপনার দেশের উপর নির্ভর করে।

 

১) আপনি যদি নিম্নলিখিত কোন দেশ থেকে আসেন:

অস্ট্রিয়া, বেলজিয়াম, বুলগেরিয়া, সাইপ্রাস, চেক প্রজাতন্ত্র, ডেনমার্ক, এস্তোনিয়া, ফিনল্যান্ড, ফ্রান্স, গ্রীস, হাঙ্গেরি, আইসল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড, ইতালি, লাতভিয়া, লিচেনস্টাইন, লিথুনিয়া, লাক্সেমবার্গ, মাল্টা, নেদারল্যান্ডস, নরওয়ে, পোল্যান্ড, পর্তুগাল, রোমানিয়া, সুইডেন , সুইজারল্যান্ড, স্লোভাকিয়া, স্লোভেনিয়া, স্পেন বা যুক্তরাজ্য।

তাহলে আপনি ওয়ার্ক পারমিট ছাড়া যত ইচ্ছা কাজ করার অনুমতি পাবেন। যাইহোক, জার্মান ছাত্রদের মত কাজের পরিমাণ প্রতি সপ্তাহে ২০ ঘন্টা অতিক্রম করতে পারে না। অন্যথায়, আপনাকে জার্মান সামাজিক নিরাপত্তা ব্যবস্থায় অর্থ প্রদান করতে হবে।

 

২) যদি আপনি অন্য দেশ থেকে আসেন:

তাহলে আপনি প্রতি বছর ১২০ পূর্ণ দিন বা ২৪০ অর্ধেক দিন কাজ করতে পারবেন। যদি আপনি বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ছাত্র সহকারী বা গবেষণা সহকারী হিসেবে চাকরি পান, তাহলে সাধারণত ১২০ দিনের সীমা অতিক্রম করলে কোন সমস্যা হয় না। তবে আপনাকে অবশ্যই শহরের  রেজিস্ট্রেশন অফিসে জানাতে হবে।

আন্তর্জাতিক ছাত্রদের জন্য কর্মসংস্থান আইন খুবই কঠোর। আপনি যদি তাদের আইন লঙ্ঘন করেন, তাহলে দেশ থেকে বহিষ্কৃত হতে পারেন!

 

  • বাধ্যতামূলক ইন্টার্নশিপ:

যদি আপনি সেমিস্টার বিরতির সময় একটি ইন্টার্নশিপ সম্পন্ন করেন, তবে এটি “স্বাভাবিক” কাজ বলে মনে করা হয় – এমনকি যদি এটি বিনা সম্মানীতেও হয়! আপনার ইন্টার্নশীপের প্রতিটি দিন আপনার ১২০ দিনের ক্রেডিট ভারসাম্য থেকে বিয়োগ করা হবে।তবে, যদি আপনার ডিগ্রী প্রোগ্রামের (বাধ্যতামূলক ইন্টার্নশীপ) প্রয়োজন হয় তবে তা নিয়মিত কর্মসংস্থান হিসেবে বিবেচিত হয় না।

 

 

 

তথ্যসূত্রঃstudy-in.de

অনুবাদ করেছেনঃমোঃ হাসান মতিউর রহমান

 

Print Friendly, PDF & Email
Hasan Motiure Rhaman

Hasan Motiure Rhaman

ঢাকা কলেজ।
বিবিএ(চুড়ান্ত বর্ষ)।
ব্যবস্থাপনা বিভাগ।
জার্মান ভাষা(এ১ শেষ)
Hasan Motiure Rhaman