• Home »
  • Life-in-Germany »
  • মসজিদে যেতে না দেয়ায় মা-বাবার বিচার হতে পারে

মসজিদে যেতে না দেয়ায় মা-বাবার বিচার হতে পারে

 

জার্মানির ১৩ বছর বয়সি এক ছেলেকে তার মা-বাবা স্কুলের সহপাঠীদের সঙ্গে মসজিদ পরিদর্শনে যাওয়ার অনুমতি না দেয়ায় তাঁদের বিচার হতে পারে৷ তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তাঁরা ‘ভাবাদর্শিক কারণে’ ছেলেকে মসজিদে যেতে দেননি৷

Deutschland Moschee in Büdelsdorf bei Rendsburg (picture-alliance/dpa/C. Rehder)

চলতি বছরের ১৪ জুন রেন্ডসবুর্গ শহরের একটি মসজিদ (ছবিতে যেটি দেখতে পাচ্ছেন) পরিদর্শনে গিয়েছিল একটি স্কুলের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা৷ ভূগোল পাঠদানের অংশ হিসেবে সেখানে স্কুল থেকেই শিক্ষার্থীদের নিয়ে যাওয়া হয়৷ কিন্তু ঐ দলের সঙ্গে নিজের ছেলেকে যেতে দেননি ঐ মা-বাবা৷ ফলে জরিমানা হিসেবে তাঁদেরকে ৩০০ ইউরো দিতে বলেছিল স্থানীয় শিক্ষা কর্তৃপক্ষ৷ কিন্তু তাঁরা জরিমানা দিতে অস্বীকৃতি জানানোয় বিষয়টি আদালত পর্যন্ত গড়িয়েছে৷ এখন আদালত সিদ্ধান্ত নেবেন যে ঐ মা-বাবার বিরুদ্ধে বিচার শুরু করা হবে কিনা৷

ছেলেকে মসজিদ পরিদর্শনে যাওয়ার অনুমতি না দেয়ার কারণ জানিয়ে স্কুল কর্তৃপক্ষকে একটি চিঠি দিয়েছেন ঐ ছেলের বাবা৷ তিনি লিখেছেন, তিনি ও তাঁর স্ত্রী তাঁদের সন্তানের নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তিত ছিলেন৷ ‘‘অনেক বছর ধরে আমরা ধর্মভিত্তিক সহিংসতার খবর দেখছি, যেগুলোর সঙ্গে ইসলাম ধর্মের মানুষরা জড়িত,’’ চিঠিতে এ কথাও উল্লেখ করা হয়৷ মসজিদ পরিদর্শনে গিয়ে ছেলে ঐ ‘মতাদর্শে উদ্বুদ্ধ’ হতে পারে বলে তাঁদের আশংকা হয়েছিল জানিয়েছেন তিনি৷

এদিকে, স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা রেনাটে ফ্রিৎস বলেছেন, শিক্ষার অংশ হিসেবে শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন সংস্কৃতির সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়, যেন তাঁরা অন্য সংস্কৃতির মানুষের সঙ্গেও মিশতে পারে৷ ‘‘আমাদের স্কুলে মুসলমান শিক্ষার্থীও আছে৷ তাদের মা-বাবা জানেন যে, তাঁদের ছেলেমেয়েকে পাঠদানের অংশ হিসেবেই বাধ্যতামূলকভাবে সাঁতার শিখতে হবে এবং যৌনশিক্ষার ক্লাসে অংশ নিতে হবে৷”

সূত্রঃ ডিডাব্লিউ.ডিই

Print Friendly, PDF & Email