• Home »
  • BSAAG-Bangladesh »
  • অনুষ্ঠিত হল বিসাগ সেমিনার দলের আড্ডা এবং পরিচয় পর্ব

অনুষ্ঠিত হল বিসাগ সেমিনার দলের আড্ডা এবং পরিচয় পর্ব

 

জার্মানিতে উচ্চশিক্ষা বিষয়ক সেমিনার এবং কর্মশালা আয়োজন করতে যাচ্ছে বিসাগ, এতোদিনে খবরটি নিশ্চয় সবাই জেনে গিয়েছেন।

প্রথম সেমিনারটি অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৬শে ডিসেম্বর, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে। সময় খুব বেশি বাকি নেই। তাই চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি।

ইতোমধ্যেই আমাদের প্রাণপ্রিয় আদনান ভাই বাংলাদেশে এসে পৌঁছেছেন। আর তাই বিসাগ স্বেচ্ছাসেবীদের চতুর্থ প্রস্তুতিমূলক সভা এবং স্বেচ্ছাসেবীদের আড্ডা ও পরিচয় পর্বে অন্য সবার সাথে আদনান ভাই নিজেও উপস্থিত ছিলেন। সভার স্থান নির্ধারণ করা হয়েছিল আদনান ভাইয়ার মিরপুরের বাসায়। নির্ধারিত সময় ৩.৩০ ঘটিকার আগেই অনেকে সেখানে গিয়ে হাজির!! সময় সচেতনতার এক অপূর্ব নিদর্শন স্থাপন করেছেন তাঁরা।

তবে মিরপুরের রহস্যময় অলিগলির মোহে জড়িয়ে আমরা কয়েকজন রাস্তা হারিয়ে দিগ্বিদিক ঘোরাঘুরি শেষে নির্ধারিত সময়ের বেশ কিছু সময় পর খুঁজে পেলাম ঐতিহাসিক সেই বাসা। পথ হারানোদের দলে ছিলেন আমাদের চারু আপুও। তিনি অবশ্য এই পথ হারানোর জন্য রিয়াদকেই দায়ী করেছেন!!!

সব কিছু ছাপিয়ে নির্ধারিত সময়েই শুরু হয়েছিল আলোচনা। আলোচনার এক ফাঁকে সবাইকে সুযোগ দেওয়া হয়েছিল নিজেদের পরিচয় এবং উদ্দেশ্য নিয়ে কিছু বলতে। একে একে সবাই নিজের পরিচয় এবং কেন বিসাগের সাথে কাজ করছেন, সে ব্যাপারে অন্যদের কিছু তথ্য দিয়ে উপকৃত করলেন।

আদনান ভাই জার্মানিতে উচ্চশিক্ষা বিষয়ে নানা অজানা তথ্য তুলে ধরেছেন আমাদের সামনে। এরপর শুরু হয় সেমিনার ও কর্মশালার প্রস্তুতি নিয়ে আলোচনা। একে একে সবাই তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব সম্পর্কে সবাইকে অবহিত করলেন। সকল দলের সমন্বয়ক হিসেবে কাজ করছেন রানা ভাই। তিনি বিভিন্ন অগ্রগতি সম্পর্কে জানালেন। একইসাথে কোন বিষয়গুলো নিয়ে আরও কাজ করতে হবে কিংবা এখনও অসম্পূর্ণ আছে, সেটিও তুলে ধরলেন।

সেমিনারের দিন কে কী কাজ করবেন, সে ব্যাপারে আবারও আলোচনা হল বেশ কিছু সময় ধরে। অবশেষে সবাইকে বিভিন্ন গুরু দায়িত্ব বুঝিয়ে দেওয়া হল। সেমিনার এবং কর্মশালা উপলক্ষ্যে প্রকাশিত হচ্ছে ‘জার্মানির পথে’ নামক একটি বই যেখানে পাওয়া যাবে জার্মানিতে উচ্চশিক্ষা বিষয়ক নানা গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। বই নিয়ে কিছুক্ষণ কথা হল।

কথা বলতে বলতে আর শুনতে শুনতে (!) সবাই ক্ষু্ধার্ত হয়ে পড়লে আলোচনার মধ্যে কিছু সময়ের বিরতি নিয়ে সবাই ভোজন পর্ব সেরে নিলো।

এরপর আবার শুরু হল গুরুগম্ভীর আলোচনা। ঘন্টাখানেক ধরে আবারও চলল প্রস্তুতিমূলক আলোচনা। পুরো সময় ধরে সকল আলোচ্য বিষয় লিপিবদ্ধ করলেন রিয়াদ সাহেব।

আলোচনার পর এবার ছবি তোলার পালা। বিসাগের সেমিনার নিয়ে আলোচনা আর সেখানে বিসাগের টি-শার্ট থাকবে না, সেটি কখনও মেনে নেওয়া যায় না। আর তাই সবাই বিসাগের টি-শার্ট গায়ে চাপালেন এবং মাথায় দিলেন বিসাগের লোগো সম্বলিত ক্যাপ। দেখে মনে হচ্ছিল যেন একটিই পরিবারের সদস্য আমরা যার নাম বিসাগ পরিবার।

ছবি তোলার পর্ব শেষ, এবার বিদায়ের পালা। একে একে সবাই পা বাড়ালেন নিজ গৃহের উদ্দেশ্যে। তবে মূল উদ্দেশ্য সবারই এক, “ সফল করতে হবে বিসাগের সেমিনার এবং কর্মশালা।”

Print Friendly, PDF & Email