• Home »
  • Cities-in-Germany »
  • ইয়েনাঃ শিক্ষার্থীদের জন্য একটি স্বর্গীয় জায়গা

ইয়েনাঃ শিক্ষার্থীদের জন্য একটি স্বর্গীয় জায়গা

 

শিক্ষার্থী হিসেবে ইয়েনার এই সবুজ শহরটিতে আপনি হেটে হেটে ঘুরতে পারেন ও এখানকার ‍সংস্কৃতির সাথে পরিচিত হতে পারেন। একজন শিক্ষার্থীর  যা কিছু প্রয়োজন তার সবই এখানে বিদ্যমান রয়েছে। এখানকার ইউনিভার্সিটিগুলো খুবই উন্নত সুযোগ সুবিধা প্রদান করে থাকে ও শিক্ষার্থীদের অবসর সময়টাকে ভালভাবে উপভোগ করে কাটানোর জন্য রয়েছে বেশকিছু পার্ক্, ক্যাফে, থিয়েটার ও জাদুঘর।

SONY DSC

ইয়েনা শহরের তথ্য ও পরিসংখ্যানঃ

মোট অধিবাসী: ১০৬,০০০ জন।

শিক্ষার্থীর সংখ্যা: ২৩,৬০০ জন।

বিশ্ববিদ্যালয়:২ টি।

মাসিক ভাড়া: ২৬০ ইউরো।

ওয়েবসাইট: www.jena.de

ইয়েনা শহরে আপনাকে স্বাগতমঃ

এই শহরে আসার জন্য সবচেয়ে ভাল মাধ্যম হচ্ছে ট্রেন। কারণ ইয়েনার ট্রেন স্টেশনে এসে নামলে, সেখানে বিস্তৃত এক খোলা মাঠ দেখা যায় ও এই জায়গাটি এতই সুসজ্জিত যে যে কেউই সহজে মুগ্ধ হয়ে যায়। “The Saale River” নামে একটি নদী রয়েছে যেটি এই জায়গাটির ঠিক মাঝখান দিয়ে চলে গেছে। আর এই নদীর তীরে রাখা আছে বেশকিছু বেঞ্চ যেগুলোতে ভ্রমণ করতে আসা পরিবার, শিক্ষাত্রী ও অন্যান্য মানুষেরা একে অপরের সাথে বসে বসে কথা বলে সময় কাটায়। এখান থেকে কিছুটা দূরে গাছ-গাছালির উপর দিয়ে দেখা যায় “লাইমস্টোন পাহাড়” এই পাহাড়টি ইয়েনা শহরের পাশে হওয়ার কারনে জায়গাটি পরিণত হয়েছে এক আকর্ষনীয় ও ব্যতিক্রমধর্মী জায়গা হিসেবে।

Limestone cliffs

এই শহরে অবস্থিত দুইটি বিশ্ববিদ্যালয় যেগুলো এই জায়গাটিকে বিশেষভাবে প্রভাবিত করেছে ও এখানে বাস করা প্রত্যেক তিনজনের একজন “the Jena University of Applied Sciences বা the Friedrich Schiller University” বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর সাথে পড়াশুনা অথবা কাজের বিষয়ে জড়িত। বিশ্ববিদ্যালগুলো এশহরের পুরো জায়গাটিতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে। ইয়েনার অর্থনীতি এখানকার সুশিক্ষিত তরুন প্র্রজন্মের উপর নির্ভরশীল। এখানে বেশকিছু নামকরা কোম্পানী রয়েছে যেমন: Carl Zeiss, Jenoptik ও Schott Werke এগুলো শুধুমাত্র বড় কোম্পানীই নয় বরং তারা চলমান বাজারে খুবই গুরুত্বপূর্ন্ অবস্থানে রয়েছে।

এখানকার দেয়ালের মধ্যে “Du bist einfach paradiesisch!” নামে লেখা দেখা যায় যার মানে হলো আপনি এখন স্বর্গে রয়েছেন, এই কথার পুরোপুরি অর্থ তখনই বুঝতে পারবেন যখন এখানকার সৌন্দ্যর্য্য দেখে মুগ্ধ হয়ে যাবেন। এছাড়াও, বিশেষ করে যখন আপনি ইয়েনাতে আসবেন তখন এখানকার বিভিন্ন প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য ও নজরকাড়া জায়গাগুলো দ্বারা সহজেই বিমোহিত হবেন। ইতিহাসে এমন অনেক বিখ্যাত লোক রয়েছে যারা এখানে আসার পর এখানকার রূপ-বৈচিত্র্যর প্রেমে পড়েছে তারপর বিভিন্ন বিষয় নিযে পড়াশোনা ও বিস্তর গবেষণা করেছে।

Graffiti at the street

Graffiti at the street

প্রখ্যাত ব্যাক্তিদের মধ্যে কয়েকজন হচ্ছে “Schiller, Goethe ও Novalis ” যারা রেখে গেছে বেশকিছু গুরুত্বর্পুণ অবদান। এখানকার ‍সুন্দর জায়গাগুলোর মধ্যে “The Goethe Memorial Site, The Romantikerhaus and the Schiller Garden” হচ্ছে অন্যতম কয়েকটি জায়গা যেগুলো খুবই গুরুত্বপূর্ন, যদি কেউ ভ্রমন করতে আসে এগুলো মিস করা ঠিক হবেনা।

ডাউনটাউন রোডগুলোতে এখানকার ছাত্রছাত্রীরা হইহুল্লোর করে সময় পার করে এবং রয়েছে প্রচুর দোকানপাট। The Jentower, নামে ভবনটিতে রয়েছে একটি শপিং সেন্টার এবং উপর থেকে চারপাশের পুরো ভিউ দেখার জন্য একটা প্লাটফর্মও রয়েছে, এই ভবন ইউনিভার্সিটির মেইন ক্যাম্পাসের খুবই কাছাকাছি অবস্থিত।

ইয়েনা শহরে বসবাসঃ

এই শহরটা মূলত ছাত্রছাত্রীদের জন্য খুবই অনূকুল পরিবেশ রয়েছে,কারন তাদের প্রয়োজনীয় সব ধরনের সুযোগ ‍সুবিধা এখানে দেওয়া হয়। নিয়মিত পড়াশুনা করার পর তারা আরাম, পার্টির আয়োজন, খেলাধুলা ও বিভিন্ন ধরনের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের ‍সুযোগ পেয়ে থাকে। এখানে অবস্থিত দুইটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভাগগুলো ছড়িয়ে রয়েছে পুরো শহরে, ছাত্রছাত্রীরা তাদের ক্লাসগুলো করার জন্য খুব অল্প সময়ে পায়ে হেটে বা বাইকে চড়ে একটা ক্লাস শেষ করে অন্যটাতে যোগ দিতে পারে।

Jentower

Jentower

শহরের ঠিক দক্ষিন পাশের শেষ মাথায় রয়েছে একটি ক্যাফে যার নাম “Café Grünowski”   এবং ওখানটাতে অল্প দামে ও সুন্দর পরিবেশে খাবার পরিবেশন করে থাকে। আরও একটি ক্যাফে আছে “ Kaffeerösterei Markt 11”  নামে  ওখানটাত যেতে পারেন যদি আরও একটু জামজমকপূর্ণ্ পরিবেশে সময় কাটাতে চান। ক্যাফেটি বিখ্যাত “roasted coffee”  এর জন্য তাছাড়াও এতে কয়েকরকমের কফি পাওয়া যায়। খুব বেশি ক্ষুদা লাগলে “Lélek”  ক্যাফেতেও যেতে পারেন এরা “Hungarian lángos“ অফার করে অথবা পিৎজা খেতে চাইলে “Restaurant Il Ponte“  টাও ভাল জায়গা এবং এই রেস্টুরেন্টের মালিক খুবই রসিক। “Wagnergasse“ এ প্রচুর শিক্ষার্থীের দেখা পাওয়া যায়। “Kaffeehaus Gräfe” এ সুস্বাদু কেক পাওয়া যায় ‍তবে যদি আপনি রান্না করা সুস্বাদু কোন আইটেম খেতে চান তবে “Fritz Mitte”  খুব ভাল জায়গা। “Wagnergass ” এ জায়গাটি সন্ধ্যার দিকে খুব ভিড় থাকে। বন্ধুদের সাথে নিয়ে “Café Wagner” কোন টেবিলে বসে খাওয়ার ইচ্ছা থাকে তবে সেখানে খুব তাড়াতাড়ি যেতে হবে। এখানে প্রায়ই বিভিন্ন ধরণের অনুষ্ঠান হয়ে থাকে চলচ্চিত্র প্র্রদর্শনি থেকে শুরু করে শিক্ষার্থী পার্টি। যদি আপনি মনে করেন এটা খুব একটা সুবিধার না তখন চাইলে  “kassablanca” ঘুরে আসতে পারেন কারন সেটাও এরকম অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে। কেউ বুগি এনজয় করতে চাইলে তখন “F-Haus” ঘুরে আসতে পারে।

কোন কোলাহল মুক্ত জায়গায় যেতে মন চাইলে তাহলে “ Optisches Museum ও the Phyletisches Museum” এক্সিবিশন থেকে ঘুরে আসতে পারেন, এছাড়াও কিছুক্ষন ফুলের সৌন্দর্য্ ও সুবাস নিতে জার্মানির দ্বিতীয় পুরাতন বোটানিক্যাল গার্ডেন ঘুরে আসতে পারেন। “Planetarium”  নামে জায়গাটি খুব আকর্ষনীয় তার গম্বুজের জন্য তাই এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ ও মূল্যবান জায়গা ঘুরে আসার জন্য। “Theaterhaus Jena” নামে থিয়েটারটি বিভিন্ন ধরনের আকর্ষনিয় সাংস্কৃতিক প্রোগ্রামের আয়োজন করে থাকে। বিশেষ করে গ্রীষ্মকালে “Kulturarena” তে অনেক রকমের ইভেন্টের আয়োজন হয়ে থাকে যেমন: খেলাধুলা, মুভি দেখা ও কনসার্ট, এগুলো চলতে থাকে রাতের পর রাত খোলা আকাশের নিচে।

সান্ড্রা ফ্রেডরিকসের পরামর্শঃ

ইয়েনাতে ভ্রমণ করার সুযোগ মিস করা উচিত না। ‘লাইমস্টান ক্লিফ’ গুলো শহরকে এমনভাবে সাজিয়ে রেখেছে যে ভ্রমণ করার জন্য অত্যন্ত সুন্দর জায়গা হিসেবে পরিচিত হয়েছে। “Landgrafenstieg”  এর আশেপাশে কিছুক্ষন ঘুরাঘুরি করার পর “Landgrafen” রেস্টুরেন্ট থেকে আরাম ও উপভোগ করার মাধ্যমে বিয়ার গার্ডেনের সৌন্দর্য্ও অবলোকন করতে পারেন।

রাশিয়ার মারিনার সাথে সাক্ষাৎকারঃ

২৩ বছর বয়সী মারিনা বাজুতিনা  একজন রাশিয়ান নাগরিক, সে এখানে এসেছে “পাবলিক কমিউনিকেশনে” মাস্টার্স করতে, ইয়েনা ইউনিভার্সিটিতে।

রাশিয়ার মারিনা

রাশিয়ার মারিনা

সান্ড্রা: পড়াশুনার জন্য ইয়েনা কেন ভাল জায়গা?

মারিনা: শিক্ষার্থী হিসেবে তুমি যেখানেই যেতে চাও, পাবলিক ট্রান্সপোর্ট্ ব্যবহার করে আধাঘন্টার মধ্যেই পৌছে যাওয়া সম্ভব এবং এক ভবন থেকে অন্য ভবনে যেতে চাইলে খুব সহজেই পায়ে হেটে চলে যাওয়া যায়।

সান্ড্রা: জার্মানিতে আসার পূর্বে একজন শিক্ষার্থীকে কি কি প্রস্তুতি নেওয়া উচিত?

মারিনা: অবশ্যই বাসস্থান, কারন এটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। এমনকি তুমি যদি নিজের ফ্ল্যাটে থাকতে চাও, শিক্ষার্থী হিসেবে প্রথমেই এখানে এসে সবার উচিত হোটেলে কোন রুম বা ফ্লাটে কারো সাথে শেয়ার করার ব্যবস্থা করে রাখা।

Wagnergasse

Wagnergasse

 

সান্ড্রা: তুমি কিভাবে তোমার বাসস্থান খুজে পেলে?

মারিনা: প্রথমেই আমি “Studentenwerk”  মাধ্যমে আমার বাসা ঠিক করে রেখেছিলাম এবং আমি মনে করি প্রত্যেকেরই এভাবে বাসা আগে থেকেই বুকিং ‍দিয়ে রাখা উচিত। যদিও ইয়েনার মতো শিক্ষার্থী নির্ভর শহরগুলোতে বাসা ভাড়া কিছুটা বেশি, তবে সে হিসেবে “Studentenwerk” এর ফ্লাটগুলো বেশ সস্তা।

সান্ড্রা: একজন শিক্ষার্থী হিসেবে খরচ কমানোর জন্য তুমি কি কি কর?

মারিনা: বাহিরের খাবার কমিয়ে দিয়ে বাসায় রান্না করা খাবার খাওয়ার মাধ্যমে আমি অতিরিক্ত খরচ কমানোর চেষ্টা করি।

সান্ড্রা: ইয়েনাতে কোন জিনিসটা তোমাকে খুবই বিস্মিত করে?

মারিনা: আমার কাছে খুবই আশ্চর্য লাগে যখন দেখি এখানকার দোকানগুলো রাত ১০ টার পর বন্ধ হয়ে যায় এমনকি রবিবারেও মূলত এটাই স্বাভাবিক নিয়ম পুরো জার্মানিতে।

Botanical garden

Botanical garden

সান্ড্রা: অন্যান্য ছাত্রছাত্রীদের সাথে যোগাযোগ করার জন্য সবচেয়ে ভাল মাধ্যম কোনটি?

মারিনা: আমার ব্যাক্তিগত মতামত থেকে মনে করি প্রত্যেকের উচিত সবার সাথে পরিচিত হয়ে নেওয়া একেবারে সেমিস্টারের শুরুতে, উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, যখন সেমিস্টারের শুরুতেই প্রত্যেকে একে অপরের সাথে পরিচিত হয়ে নেয়। তাছাড়া নিজের ডির্পাটমেন্টের ছাত্রছাত্রীদের সাথে কথা বলে বিভিন্ন বিষয়ে জেনে নেওয়া যায় যেমন: পড়াশুনা নিয়ে, জীবনযাত্রা নিয়ে ইত্যাদি।

সান্ড্রা: জার্মানদের সাথে নিজেকে মানিয়ে নেওয়ার জন্য তুমি পরামর্শ দিবে?

মারিনা: কারোরই ‍উচিত না জার্মানদের সাথে খুব তাড়াতাড়ি মিশে যাওয়ার চেষ্টা করা। যোগাযোগ করে তাদের সাথে বন্ধুত্ব করা যায়না, সেজন্য তাদের সাথে সাক্ষাতের প্রয়োজন ও সহপাঠীদের সাথে সাথে ইউনিভার্সিটির বাইরে আন্ন্দ উল্লাস করতে হবে।

সান্ড্রা: জার্মানিতে পড়াশুনা করাকে তুমি কিভাবে মূল্যায়ন কর?

মারিনা: জার্মানিতে পড়াশুনা করার সুবাধে আমি আমার ভবিষ্যৎ নিয়ে পরিকল্পনা করার অনেক সুযোগ-সুবিধা পেয়েছি। তাছাড়াও এই জায়গাটা খুবই আরামদায়ক, সবুজ ও শান্ত। বিভিন্ন শহরে ঘুরার জন্য যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে।

 

সূত্রঃ study-in.de

অনুবাদকঃ রাসেল নীল, ঢাকা।

Print Friendly, PDF & Email