জার্মানি থেকে বাংলাদেশ যেতে ফ্লাইট খোঁজা

 

সম্প্রতি ইন্টারনেটে জার্মানিতে থেকে বাংলাদেশ যেতে টিকেট খুঁজতে গিয়ে বেশ কয়েকটি চমতকার সাইটের খোঁজ পেলাম। নেট থেকে কিনব, নাকি শহরের কোন ট্রাভেল এজেন্সির থেকে টিকেট কেন বেশি সাশ্রয়ী এমন দ্বিধায় ভুগে অবশেষে মনে হল অভিজ্ঞতাটাকে লিখে ফেললে হয়তো অনেকের কাজে দিতে পারবে।

ফ্লাইট খুঁজতে সবচেয়ে বেশি যেটা গুরুত্বপূর্ন মনে হয়েছে সেটা হল, মাঝের স্টপে কত সময় অপেক্ষা করতে হবে। বিশেষ করে সাথে বাচ্চা নিয়ে ভ্রমন করলে এটা খুব দরকারি একটা তথ্য। অনেক সময়েই সস্তার তিন অবস্থার মধ্যে একটা হল সস্তা টিকেটে বেশীরভাগ সময়েই মাঝখানে অনেক সময় বসে থাকতে হয়। কোন কোন ক্ষেত্রে ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত। বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই এয়ারলাইন্সগুলো কোন হোটেল অফার করে না এবং সব এয়ারপোর্টে ওয়াইফাই এমনকি ভাল বসার বন্দোবস্ত পর্যন্ত থাকে না। যেমন, তুরস্ক বা দোহাতে এমন অভিজ্ঞতা হয়েছে। অন্যদিকে দুবাই মাঝের স্টপের জন্য অন্য জায়গার তুলনায় ভাল বাছাই।

স্থানীয় কিছু ভাল ট্রাভেল এজেন্সিরা মাঝে মাঝে ভাল কিছু অফার দেয়। বিশেষ করে রেইল এন্ড ফ্লাই জাতীয় টিকেটের দাম সাধারণত টিকেটের দামের মধ্যেই হয়ে যায়। এটা অনেকের জন্য, বিশেষ করে ছাত্রদের জন্য কার্যকরী। প্রথমেই নিজের শহরে ভাল এজেন্সি আছে কিনা খোঁজ নিয়ে দেখতে পার। তবে আমার অভিজ্ঞতা বলে ভাল এজেন্সি হলে তাদের চার্জও বেশি। আর যারা অল্প দামে টিকেট দেয়, তাদের সার্ভিস অনেক ক্ষেত্রেই ভাল না। বিশেষ করে হঠাত করে যদি টিকেটের তারিখ বদলাতে হয় ইত্যাদি ক্ষেত্রে।

আমার ব্যক্তিগত পছন্দ অনলাইনে টিকেট কাটা। এখানে ইচ্ছেমতন সময় এবং খরচের তুলনা করা যায়। ইচ্ছেমতন তারিখ, যাত্রার বিরতি সময়, টিকেটের দাম ইত্যাদি অনুসারে সাজিয়ে দেখা যায়। শুরু করা যেতে পারে www.skyscanner.de দিয়ে।বিশেষ করে স্মার্ট ফোনের জন্য এদের একটা ফ্রি এপ আছে। ডাউনলোড লিংক পাওয়া যাবে এপ স্টোরে বা এখানে http://www.skyscanner.de/handy.html

Skyscannerআরেকটি চমৎকার সাইট www.momondo.com। এদেরও একটি দারুণ দাম তুলনা করার এপ আছে। গোগল ডাউনলোড লিংক।
mome

এই এপ দিয়ে মোবাইল ফোনেই পছন্দের সময়ের ফ্লাইট খোঁজা সম্ভব। এরা সাধারণত অন্য অনেকগুলো সাইটের ফলাফল ব্যবহার করে এবং টিকেট কাটার জন্য অন্য সাইটে ফরোয়ার্ড করে দেয়। মোবাইল ফোনে গোগল+ বা ফেসবুক আইডি ব্যবহার করে লগ ইন করলে সব সার্চগুলো আর্কাইভ করে রাখা যায়।

জার্মানি থেকে বাংলাদেশ যাবার জন্য সাধারণত আমিরাত, কুয়েত, কাতার, ইতিহাদ, তুরস্ক, সৌদি ইত্যাদি এয়ারলাইন্স বেশি জনপ্রিয়। এদের সাইটে গিয়ে খোঁজ করলেও অনেক সময় বিশেষ অফার পাওয়া যায় যেগুলো অনেক সময়েই সার্চ ইঞ্জিনগুলোতে আসতে দেরি হয়। যেকোন টিকেট কাটার আগে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবার আগে মূল এয়ারলাইন্সের সাইটে গিয়ে খোঁজ করা যেতে পারে।

আমিরাতঃ www.emirates.com

কুয়েতঃ www.kuwaitairways.com

কাতারঃ www.qatarairways.com

ইতিহাদঃ www.etihad.com

তুরস্কঃ www.turkishairlines.com

সৌদিঃ www.saudiairlines.com

ফ্লাইট খোঁজার জন্য এবং দাম তুলনা করার জন্য আরো কিছু সাইটের লিংক নিচে দেয়া হলঃ

www.seat24.de

www.travelstart.de

www.billigflug.de

www.opodo.de

www.swoodoo.com

www.billigfluege.de

www.fluege.de

www.cheaptickets.com

www.kayak.com

www.momondo.de

টিকেট কাটার জন্য সাধারণত ভিসা বা মাস্টার্স কার্ড প্রয়োজন হয়। অনেক ক্ষেত্রে পে-পাল একাউন্ট দিয়েও টাকা পাঠানো যায়। কিছু কিছু ক্ষেত্রে সরাসরি ব্যাঙ্ক থেকে টাকা ট্রান্সফার করা সম্ভব।

অনলাইন সার্চ ইঞ্জিনগুলো টিকেট কাটার সময় বিভিন্ন ধরণের ইনস্যুরেন্স সার্ভিস অফার করে। এর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন হল Reiserücktrittsversicherung ইনস্যুরেন্স। হঠাত করে অসুস্থতা বা অন্য কোন দুর্ঘটনার জন্য যদি যাত্রা বাতিল করতে হয়, তাহলে এই ইনস্যুরেন্স সব খরচ বহন করে। চাইলে এয়ারলাইন্স বা এজেন্ট থেকে না কিনে অনলাইনে এই ইনস্যুরেন্স আলাদা করেও কেনা সম্ভব, এতে করে একটু কম খরচ পড়ে। একটা সাইট দিলাম এই নিয়ে পড়ার জন্য   www.geld.de/Reiserücktrittsversicherung

সাধারণত ফ্রাঙ্কফুর্ট থেকে সবচেয়ে বেশি এয়ারলাইন্সের অফার পাওয়া যায়। তবে ইদানিং কিছু ফ্লাইট বার্লিন, হামবুর্গ, মিউনিখ বা ডুয়েসেল্ডর্ফ এর মতন বড় শহর থেকেও পাওয়া যায়।

কারও যদি অন্য কোন তথ্য থাকে যেটা এই আর্টিকেলে যুক্ত করা সম্ভব, অনুগ্রহ করে জানালে বাধিত হব। সবার দেশের পথে যাত্রা শুভ হোক।

আদনান সাদেক, ২০১৪

 

জার্মানিতে উচ্চশিক্ষা ও ক্যারিয়ারের পথ প্রদর্শকঃ বিসাগ

Print Friendly, PDF & Email
Adnan Sadeque
Follow me

Adnan Sadeque

লেখকের কথাঃ
http://bsaagweb.de/germany-diary-adnan-sadeque

লেখক পরিচয়ঃ
http://bsaagweb.de/adnan-sadeque
Adnan Sadeque
Follow me