এসেন: সবুজের বুকে সংস্কৃতি এবং কেনাকাটা

 

এসেনে আপনাকে স্বাগতমঃ

এসেন মহানগর শহর রুহর(Ruhr) অঞ্চলের বুকে অবস্থিত। এই সাবেক শিল্প শক্তিকেন্দ্র ,ক্রমবর্ধমান সংস্কৃতি এবং কেনাকাটার একটি কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে।আয়তনের তুলনায় অনেক বেশি পার্ক এবং হ্রদ এর সংস্পর্শে শহরটি আশ্চর্যজনকভাবে সবুজ,যা শহর শিথিলকরণ এবং চিত্তবিনোদন এর সুযোগ প্রদান করে।

তথ্য এবং পরিসংখ্যানঃ

অধিবাসী : ৫৬৬,০০০ জন

ছাত্র/ছাত্রী সংখ্যা: ৬৭,৪০০

বিশ্ববিদ্যালয়: ৪টি

মাসিক ভাড়া: ৩০০-৪০০ ইউরো।

আপনি যদি হটাত কোনো এক শনিবারে এসেনে এসে থাকেন তাহলে, হাজার হাজার মানুষ ভরা রাস্তা দেখে বিস্মিত হবেন না। অনেক মানুষ কেনাকাটা করার জন্য শহরের কেন্দ্রস্থল এ যায় ,জাদুঘর পরিদর্শন করতে অথবা থিয়েটারগুলতে যায় সন্ধ্যার অবসর সময় কাটাতে। এসেন, Ruhr অঞ্চলের মাঝখানে একটি শহর, এবং একটি কেনাকাটার স্বর্গ ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র।

এসেন এর প্যানোরামা ছবি।

শহরটি পূর্বে কিন্তু এমন ছিল না। অন্যান্য অঞ্চলের মত, এসেন এখনও তার ভারী শিল্পের অতীত নিদর্শন বহন করে। আপনি এখনও শহরের উপকন্ঠে পুরানো কয়লাখনি দেখতে পাবেন। ” Zeche Zollverein , “শহরের উত্তর প্রান্তের পুরাতন একটি কয়লাখনি।

সলফারিন কয়লা খনি

এটি ইউনেস্কোর ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট হিসেবে মনোনীত এবং শহরে প্রতি বছর  অনেক পর্যটক আসে।এসেন (সম্পূর্ণ Ruhr অঞ্চল সহ) ২০১০ সালে ইউরোপের সংস্কৃতির রাজধানি ছিল,এবং দর্শনার্থীদের মুগ্ধ করেছিল এর ইতিহাস, শিল্প ও জীবনধারার মান দিয়ে।

ইস্পাত উৎপাদনকারী বিভিন্ন বস্তুর পিণ্ড “ThyssenKrupp” সমগ্র শহর জুড়ে এর চিহ্ন রেখে গেছে।১৯ শতকে প্রতিষ্ঠিত Family- Run Company , উল্লেখযোগ্যভাবে এসেন এবং সাথে জার্মানির ও ইতিহাস পরিবর্তন করেছে। আপনি ক্রুপ পরিবারের চিত্তাকর্ষক ইতিহাস এবং Villa Hügel এ তাদের কোম্পানী সম্পর্কে আরও জানতে পারেন,যা ক্ষমতা এবং সম্পদ জমানোর উৎকৃষ্ট উদাহরণ।আপনি যদি এসেনের সাংস্কৃতিক বৈচিত্র্য এর একটি ভাল অনুভুতি লাভ করতে চান তাহলে,ঘুরে আসুন tram line 107। এটি হল এসেনের “সাংস্কৃতিক লাইন” যা আপনাকে এসেনের আকর্ষণীয় সব দর্শনীয় স্থানে নিয়ে যাবে, এই যেমন  Zeche Zollverein, আল্টো থিয়েটার এবং Folkwang Museum.

ভিলা- হিউগাল

এসেনে বসবাসঃ 

এসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস শহরের উত্তর প্রান্তে অবস্থিত। আপনার অধ্যয়ন এর বিষয়ের উপর ভিত্তি করে, আপনাকে এসেন এবংডুইসবার্গ উভয় ক্যাম্পাসে লেকচার এবং সেমিনার করতে হতে পারে ,কারণ  বিশ্ববিদ্যালয় যৌথ ডিগ্রী প্রোগ্রাম অফার করে। অধিকাংশ ছাত্র এতে কিছু মনে করেন না কারণ, উভয় ক্যাম্পাস এর মধ্যে একটি দ্রুতগামী ট্রেন সংযোগ আছে।

এসেন শহরের ট্রেন

বেশিরভাগ ছাত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছাকাছি উত্তরের জেলা সমুহে থাকতে পছন্দ করে।অনেক তরুণ ছেলেমেয়েরা দক্ষিণের জেলা এবং শহরের কেন্দ্রস্থলের বিপরীত দিকে Rüttenscheid  কোয়ার্টারে থাকে। Margarethenhöhe settlement অবশ্যই দেখা প্রয়োজন। জার্মানির প্রথম বাগান শহর হিসেবে বিবেচনা করা হয়, এটা 20 তম শতকের শুরুর সময় থেকে মানুষের বন্ধুত্বপূর্ণ জীবনযাত্রার মানের প্রতিনিধিত্ব করে। Margarethenhöhe এর অবিলম্বে সান্নিধ্যের মধ্যে, আপনি Gruga পার্ক পাবেন, যা শহরের বৃহত্তম পার্ক। এটি সেই জায়গা যেখানে শহরের অধিবাসীরা, বিনোদনের জন্য ,খেলাধুলা বা বন্ধুদের সঙ্গে দেখা করতে যায়।এই পার্কে ভাল শিল্প উত্সাহীদের জন্য ; ভাস্কর্য এবং ইনস্টলেশন সারা পার্ক জুড়ে অবস্থিত। আপনি আরও দক্ষিণে যান তাহলে, আপনি Baldeney এবং Kettwiger লেক পৌঁছে যাবেন, যেখানে আপনি ইনলাইন স্কেটিং, সাইক্লিং, সার্ফিং এবং ক্যানুইং করতে পারেন।আমরা Zeche Zollverein এ একটি সফরে যেতে বলবো  বা  folkwang যাদুঘর প্রদর্শনে যাবার জন্য বলবো। সদ্য ২০১০ সালে পুনর্নির্মিত, যাদুঘর শাস্ত্রীয় ও আধুনিক শিল্প মুগ্ধ প্রদর্শনীর জন্য অনেক নাম করেছে। আপনি সিনেমা হলে  সিনেমা দেখার আগ্রহী হন, তাহলে আপনার Lichtburg শহরের কেন্দ্রস্থলে যাওয়া উচিৎ। সিনেমা হল তার শাস্ত্রীয়, স্পষ্ট স্থাপত্য শৈলী জন্য অসাধারণ, যা জার্মানির বৃহত্তম সিনেমা মিলনায়তন।

টিপঃ

Why so serious “এসেনের  মধ্যে সবচেয়ে ভালো বার্গার জয়েন্টগুলোর একটি। রেস্টুরেন্ট মালিক প্রতি সপ্তাহে একটি সম্পূর্ণ বছরের জন্য একটি করে নতুন বার্গার রেসিপি নিয়ে আসেন। তাদের কাছে সুস্বাদু হ্যামবার্গার পাওয়া যায়- এমনকি ভেগান ভার্সনেও।যেহেতু বিভিন্ন দেশ এবং সংস্কৃতির মানুষের বাড়ি এসেন,  তাই শহরে বিভিন্ন রঙের, বিভিন্ন স্বাদের রান্নার দেখা মেলে । Rüttenscheider স্টার্ন এর কাছাকাছি, আপনি বিস্তর পরিসরে বিভিন্ন ছোট ছোট স্থানীয় রেস্তরা পাবেন যেখানে আপনি স্বাদ অনুসারে বিভিন্ন রকম খাবার পাবেন। একটি রন্ধনসম্পর্কীয় উৎসব প্রত্যেক গ্রীষ্মে এসেন এর মধ্যে সঞ্চালিত হয়। শহর এর প্রায় অনেক রেস্টুরেন্ট Kettwiger Strasse  এর উৎসবে তাদের  বিভিন্ন রকম  রান্না উপস্থাপন করে, এর মধ্যে আপনিআপনার পছন্দের খাবার খেয়ে দেখতে পারেন । আপনার যদি আরো অনুপ্রেরণার প্রয়োজন হয়, তাহলে “Ruhr-Menü” পৃষ্ঠায় দেখুন” যেখানে আপনি একটি আকর্ষণীয় ম্যাপ পাবেন যা আপনাকে প্রচলিতো উত্কৃষ্ট এবং সুন্দর রেস্টুরেন্ট খুঁজে পেতে সাহায্য করবে।স্থানীয়রা এবং পর্যটকেরা  এই অনলাইন সাইটকে বিশেষ সহায়ক করে তুলেছে।

চিনের ইংকিয়ান এর সঙ্গে সাক্ষাৎকারঃ

২৫ বছর বয়সী  ইংকিয়ান ঝাঙ চীন থেকে এসেছে, এবং “টেকনিক্যাল লজিস্টিক” বিষয়ে তার মাস্টার্স ডিগ্রী অর্জন করেছেন।

ছবিঃ চীনের ইংকিয়ান ঝাঙ

তাকে প্রশ্ন করা হয়েছিলো, কেন আপনি এসেন এ অধ্যয়ন করার সিদ্ধান্ত নেন?

তার মতে “যখন আমি প্রাথমিক স্কুলে ছিলম তখন আমি Ruhr অঞ্চল সম্পর্কে শুনি। আমি Ruhr অঞ্চলের ইতিহাস, কয়লা খনির এবং ইস্পাত শিল্প সম্পর্কে জেনেছি।এভাবে  আমার জার্মানি সম্পর্কে প্রথম আগ্রহ জন্মে। পরে আমি ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয় সমূহ দেখি।আমি এসেন বেছে নিয়েছি কারণ বিশ্ববিদ্যালয় শহরের কেন্দ্রে অবস্থিত।

আপনি জার্মানিতে থাকার জন্য কিভাবে প্রস্তুতি নিয়েছেন?

আমি সাংহাই এ আমার বিশ্ববিদ্যালয়ে জার্মান শিখেছি ।আমি ডাড আয়োজিত (DAAD) কর্মশালা সমুহে অংশ নেয়, যেখানে আমি সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্য সম্পর্কে কিছু শিখেছি, উদাহরণস্বরূপ বলা যেতে পারেঃ  কিভাবে ” “Glühwein” (mulled wine) তৈরি করতে হয়।

ছবিঃ গ্রুগাপার্ক

বিদেশী ছাত্রদের জার্মানিতে পড়াশোনা করতে আসার আগে কিসের প্রতি বেশি খেয়াল রাখতে হবে?

ভাষা বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ। যদিও আমি চীন এ ভাষার কোর্স করেছিলাম,তারপরেও আমি প্রথম যখন জার্মানি আসি তখন যে কোন জিনিষ বুঝতে আমার খুব কষ্ট হতো, কারন সবাই খুব দ্রুত কথা বলে।. এবং আমার ভিসা দীর্ঘায়িত করতে, আমাকে এক বছরের মধ্যে এখানে একটি ভাষা পরীক্ষা পাস করতে হয়েছে।জার্মান ভাষা জার্মানির সংস্কৃতি সম্পর্কে অনেক কিছু জানার জন্য যথাযথ সাহায্য করে।

শুরুরদিকে জার্মানিতে আপনার জন্য সবচেয়ে কঠিন জিনিস কি ছিল?

আমাকে এখানকার মানুষের বিভিন্ন নিয়মকানুন সম্পর্কে অভ্যাস্ত হতে হয়েছিল।তারা আপনাকে সরাসরি বলে দেবে যে “না, এটা ঠিক নয়” আমরা চাইনাতে এই বিষয়গুলো একটু অন্যভাবে প্রকাশ করি।

.

 

 

 

 

 

 

 

আপনি কিভাবে বাসস্থান খুঁজে পেয়েছিলেন ?

আমি একটি শেয়ার- ফ্ল্যাট খুজছিলাম এবং  ইন্টারনেট এ একটা পেয়েও গেলাম।এর জন্য আপনি এখানে দেখতে পারেন  www.wg-gesucht.de .

পড়ালেখার জন্য এসেন কেন ভাল জায়গা?

আমি এটা পছন্দ যে বিশ্ববিদ্যালয়টি  শহরের কেন্দ্রে অবস্থিত। ক্লাস করার পরে, আপনি শহরে যেতে পারেন এবং কেনাকাটা বা কফি খেতে পারেন।আমার এটাও পছন্দ যে বিদেশী ছাত্রদের লক্ষ্য করে অনেক প্রোগ্রাম এবং ইভেন্ট অফার করে ASTA [editor’s note: short for “Allgemeiner Studierendenausschuss” (General Student Committee)] বা ইন্টারন্যাশনাল অফিস। তারা প্রায়শই খুব কম খরচে কর্মশালা এবং প্যাকেজ ট্যুরের প্রস্তাব করে।

অন্যান্য ছাত্রদের সম্পর্কে জানার জন্য সবচেয়ে সহজ উপায় কি?

কর্মশালা তে  খুব  দ্রুত  অনেক মানুষের সাথে আপনার দেখা হবে। আমি আমার বিভাগের (Fachschaft) ছাত্র কমিটিতে যেতাম, কারন তারা অধ্যাপকদের সাহায্যে বিভিন্ন কোম্পানিতে ট্যুরের ব্যবস্থা করতো।

লিখেছেনঃ বাসটিয়ান রোথে

অনুবাদ করেছেনঃ সাজেদুর রহমান, রাজশাহী 

Print Friendly