• Home »
  • BSAAG »
  • বিসাগের নতুন ফেসবুক গ্রুপঃ “bsaag.reloaded”

বিসাগের নতুন ফেসবুক গ্রুপঃ “bsaag.reloaded”

 

ফেসবুকে বিসাগ গ্রুপ আবার নতুন করে শুরু হয়েছে। এখানে ক্লিক করে যোগ দিন বিসাগের একমাত্র অফিসিয়াল গ্রুপে 

BSAAG Reloaded

কিছু প্রতারক বিসাগের জনপ্রিয়তায় দগ্ধ হয়ে ফেসবুকে বিসাগের নামে মিলিয়ে গ্রুপ এবং পেইজ চালু করেছে। এদেরকে প্রতিহত করুন, আর সাথে থাকুন বিসাগের।

 কেন নতুন গ্রুপ~ www.facebook.com/groups/bsaag.reloaded/permalink/523356044441456

বিসাগের সবগুলো গ্রুপ বন্ধ হয়ে গেল ৩০শে মার্চ শনিবার। সেদিনই দুপুরে রাসেলের সাথে কথা হল ফোনে। ও বলল, ভাইয়া, মনে হয় ফেসবুকে কোন ঝামেলা, কোন আপডেট হলে জানাবো। এই গ্রুপ টা তৈরি করলাম (March 30 at 11:27pm), পরিচিত যাদেরকে বিশ্বাস করি তাদেরকে যুক্ত করলাম। কেউ আমাদের গন রিপোর্ট দিয়ে বন্ধ করে দিচ্ছে, এই ভয়ে এই গ্রুপটাকে সিক্রেট রাখলাম। রাসেল আনিসকে এই গ্রুপে যুক্ত করা হল, যদিও তারা একটা কথাও বলল না।

পরদিন ৩১ তারিখ আমাদের পেজ ডিলিট হয়ে গেল। আমি আর রাসেল সেটার এডমিন। তখনও বিশ্বাস করি না যে নিজেদের কেউ এটা করতে পারে। ভাবলাম জামাতরা আরও রিপোর্ট মারছে। (রেফারেন্স~ www.facebook.com/groups/bsaag.reloaded/permalink/518837888226605/)
খেয়াল করলাম রাসেল, তানজিয়া বা আনিস (Capricious Based) কেউ ফেসবুকে কোন মেসেজের উত্তর দিচ্ছে না। গ্রুপ বন্ধ, পেজ মুছে গেল, কিন্তু কারও কোন সাড়া নেই।

এপ্রিলের ২ তারিখ রাসেলের প্রোফাইলে নতুন গ্রুপের ঘোষণা আসল। আমি হতবাক হয়ে রাসেলের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলাম। সে আমাকে, এমনকি আমার স্ত্রীকে পর্যন্ত ফেসবুকে ব্লক করে দিল। ফোন করলাম, ধরল না।

ব্যাপারটা পূর্ব পরিকল্পিত সেটা বোঝা গেল, যখন জানলাম~
১। ফেসবুকে পেইজ রাসেল নিজে মুছে দিয়েছে।

২। আমাদের ওয়েব সাইট কেউ রিপোর্ট করে নাই, বরং টেকনিক্যাল কাজ জানে এমন কেউ আমাদের বিসাগওয়েব সাইটকে ইন্সটাগ্রামের ব্রান্ডের রেফারার হিসেব যোগ করে দিয়েছিল। সেটার সাথে সাথে ফেসবুকে আমাদের ওয়েব সাইটকে সম্পূর্ণ রূপে নিষিদ্ধ করে দিল।

৩। ব্যানার, নতুন গ্রুপ, পেইজ -এইসব তৈরি করতেও কয়েকদিন লাগে। কিন্তু HSA যেমন সবকিছু জানত, তেমনি রাসেল, তানজিয়া বা আনিসও আগে থেকেই প্ল্যান করে রেখেছিল তারা এমন কিছু করবে। ইচ্ছে করলে আমাকে বা অন্য এডমিনদেরকে তারা বিসাগ গ্রুপ থেকে বাদ দিতে পারত, সেটা করলে সম্ভবত ধোপে টিকত না। তাই রাতের আঁধারে ওয়েব সাইট, গ্রুপ, পেজ সব বন্ধ করে দিল। নতুন গ্রুপ, পেজ বানিয়ে তারা মিথ্যে করে লিখল, “পুরনো আমরাই নতুন করে।” এখন নাকি নতুন ওয়েব সাইটও আসছে।

৪। germanprobashe.com নামে গোগল করে দেখা গেল এই সাইটটি মার্চের ২০ তারিখের দিকে ডোমেইন কেনা হয়েছে। আগে থেকেই প্রস্তুতি নেয়া ছিল। আমাদের প্রতিটা খাতে পঙ্গু করে নতুন গ্রুপ, পেইজ, এমনকি নতুন ওয়েব সাইটের ঘোষণা এল।

৫। নতুন গ্রুপে গেলে দেখা যাবে, বিসাগের সব ডকুমেন্ট ওখানে চুরি করে সাজিয়ে রাখা আছে। গ্রুপ বন্ধ হয়ে যাবে এটা আগে থেকে না জানলে এতগুলো ডকুমেন্ট সরিয়ে আলাদা করে সেভ করে রাখার কথা না।

এডমিনদের কেউ, যে কিনা গ্রুপ নিজে থেকে ব্লক করেছে বা ফেসবুক পেইজ ডিলিট করে দিয়েছে, সেই ঘটনার দায়ভার ফেসবুক নিতে পারে না। এটা আমাদের নিজেদের ব্যর্থতা। কেউ যদি নিজেদের লোক সেজে পেছন থেকে ছুরি মারে, সেখানে কীইবা করার থাকতে পারে।

রাসেল ক্রিয়েটর হিসেবে এখনও বিসাগের মূল গ্রুপ নিয়ন্ত্রণ করছে, এবং ফেসবুকে পাবলিক স্ট্যাটাস দিয়ে তাকে ক্ষমা চাওয়ার সুযোগে কোন সাড়া দেয়নি।(www.facebook.com/adnan.sadeque/posts/10152284352396390)
এই মুহূর্তে নতুন গ্রুপ তৈরি করা ছাড়া কোন উপায়ন্তর থাকল না। চেনা মানুষ গাদ্দারি করেছে বলে, বিসাগ নিয়ে এজেন্সির বিরুদ্ধে যে প্রতিরোধ গড়ে তুলেছি সেটাকে ছেড়ে দিতে পারে না।

এমনকি যখন জামাতের গ্রুপ আবিষ্কার করেছি, তখনও বলি নাই কাউকে সেই গ্রুপ ত্যাগ করতে, বা গ্রুপের নামে রিপোর্ট করতে। এইবারও বলব না। সবার বিবেক আছে, তার উপরে ভরসা করে ছেড়ে দিলাম।

অনেকেই রাজাকারমুক্ত কথাটাতে আহত হন। রাজাকারি আসলে বিশেষ কোন রাজনৈতিক দল বা ধারা নয়। বিসাগ, বা আমি ব্যক্তিগত ভাবে বাংলাদেশের কোন রাজনৈতিক ধারায় বিশ্বাস করি না। আমি বিশ্বাস করি বাংলাদেশ পন্থায়, যারা নিজের দেশকে নিয়ে ভাবে, নিজের ঐতিহ্য এবং ভাষা নিয়ে গর্ব করে। নিজের অস্তিত্বকে বিসর্জন দিয়ে পাকিস্তান, ভারত বা অন্য দেশের দালালি করা আমাদের কাম্য হতে পারে না। শুধু বাংলাদেশ যাদের কাছে সবার উপরে, তারাই এই ফোরামে থাকুন, অন্যরা নয়।

যারা দেশের মানুষের ভেতরে মিশে থেকে সুযোগ বুঝে পেছন থেকে হামলা করে, যারা একটি উদ্যোগকে সম্মুখ যুদ্ধে হারিয়ে দিতে না পেরে পেছন থেকে ছুরি মেরে পঙ্গু করে দিতে চায়, সব কিছু মুছে দিয়ে জোর করে থামিয়ে দিতে চায় সামান্য কথা বলার অধিকারটুকু – তারাই কি আসলে রাজাকার নয়?

বিসাগ জেগে থাকুক। এজেন্সি নিপাত যাক। জার্মানিতে উচ্চশিক্ষার পথ প্রতিটি বাংলাদেশি ছাত্রছাত্রীদের জন্য উন্মুক্ত থাকুক।

আদনান সাদেক

১১ই এপ্রিল, ২০১৪।

এক নজরে বিসাগের সকল অঙ্গসংগঠন

#BSAAG  #BSAAG_Admin_Notice

১৬ই এপ্রিল, ২০১৪। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে ফেসবুকে আমাদের ছোট ভাইয়ের সাথে ঘন্টার পর ঘন্টা কথা বলার পর, অনেক অনুরোধ আবেদনের পর আমাদের সাইট এবং সবগুলো গ্রুপ ফিরে পাওয়া গেছে। www.facebook.com/groups/bsaag.reloaded/permalink/525310044246056

২৩শে এপ্রিল, ২০১৪। আইনগত প্রমাণসাপেক্ষে ফেসবুকে বিসাগের মুছে দেয়া পেজটির প্রায় ২৯,০০০ ফ্যান ফেরত দিয়েছে ফেসবুক। www.facebook.com/groups/bsaag.reloaded/permalink/528410907269303

 

Print Friendly, PDF & Email