• Home »
  • Cities-in-Germany »
  • ব্রাউনশোয়াইখঃ যেখানে মধ্যযুগ এবং আধুনিক যুগের সংমিশ্রণ ঘটেছে

ব্রাউনশোয়াইখঃ যেখানে মধ্যযুগ এবং আধুনিক যুগের সংমিশ্রণ ঘটেছে

 

ব্রাউনশোয়াইখ বৈচিত্র্যপূর্ণ শহর। আপনি এখানে আধুনিক যুগের দোকান গুলোর সাথে মধ্যযুগের গীর্জা দেখতে পাবেন। সুন্দর পার্ক Technische Universität (TU) এর ধূসর ভবনের শোভা বৃদ্ধি করেছে, এটি জার্মানির প্রাচীনতম কারিগরি কলেজ। বৈচিত্র্যপূর্ণ গুণাবলী এবং অপরুপ সৌন্দর্যের শহর হল ব্রাউনশোয়াইখ। ব্রাউনশোয়াইখ-এর অধিবাসীরা তাদের শহর নিয়ে খুবই গর্বিত। মধ্যযুগীয় আবেশে সাজানো শহরের কেন্দ্রস্থলের জন্য এটাকে জার্মানির সবচেয়ে মনোরম শহরগুলোর একটি হিসাবে গণ্য করা হয়। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক এবং প্রান্তিক কোম্পানির আবাসস্থল হল ব্রাউনশোয়াইখ। নানা গুণাবলীর বৈচিত্র্যপূর্ণ শহর হল ব্রাউনশোয়াইখ। এর একটা উদাহরণ হল দুর্গের ভিতরে শপিং সেন্টার। আধুনিকতা এবং ঐতিহ্যের সমন্বয়ের কারণে এই শহরের প্রতি শিক্ষার্থীদের আকর্ষণ ক্রমেই বেড়ে চলেছে। অনেক বেশি তরুণ ছেলেমেয়ের সংস্পর্শ ব্রাউনশোয়াইখকে  অত্যন্ত স্পন্দনশীল করে তোলে।

ব্রাউনশোয়াইখ দুর্গ

ব্রাউনশোয়াইখ দুর্গ

ব্রাউনশোয়াইখ শহরের তথ্য এবং পরিসংখ্যানঃ

অধিবাসীঃ ২৪৪,০০০ জন

শিক্ষার্থীঃ ২৯,৮০০ জন

বিশ্ববিদ্যালয়ঃ ৩টি

মাসিক ভাড়াঃ ৩০২ ইউরো।

ওয়েবসাইটঃ www.braunschweig.de

শহরের কেন্দ্রস্থলে দেখার মতো অনেক জায়গা আছে। উদাহরণস্বরূপ, আধুনিক দোকান সমূহের পাশে অবস্থিত আকর্ষণীয় দুটি ভবন,  Burg Dankwerode  এবং ব্রাউনশোয়াইখ ক্যাথেড্রাল। Kohlmarkt এ আপনি দেখতে পাবেন ব্রাউনশোয়াইখের  অধিবাসীরা তাদের শহর নিয়ে এত গর্বিত কেন, মধ্যযুগের অর্ধকাষ্ঠনির্মিত ঘর এর সমন্বয়ে উৎকৃষ্ট ক্যাফে এবং সুপরিচিত সারিবদ্ধ দোকান রয়েছে এখানে। শহরের প্রাচীনতম অংশ নবম শতাব্দীর প্রথমদিকে নির্মিত। ওকার নদী শহরের চারপাশ ঘিরে এঁকেবেঁকে বয়ে চলেছে। নৌকা ক্রমাগত পর্যটকদের নিয়ে নদীতে ঘুরতে থাকে, যেন তারা জলের উপর থেকে শহরের দৃশ্য উপভোগ করতে পারে। ব্রাউনশোয়াইখের অধিবাসীরা বিনোদনের জন্য তাদের অবসর সময়গুলোতে নদীর উপর নৌকা বেঁয়ে ঘুরে বেড়াতে পছন্দ করে। কিন্তু শিক্ষার্থীরা শুধুমাত্র ব্রাউনশোয়াইখের আকর্ষণীয় স্থাপত্যশৈলী কারণ এর প্রতি  আকৃষ্ট হয় না।

ওকার নদী

ওকার নদী

TU Braunschweig  জার্মানির প্রাচীনতম এবং সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ কারিগরি কলেজ। এর বেশিরভাগ ডিগ্রী প্রোগ্রাম -যেমন মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং-এর শিক্ষার্থীরা – অনুশীলন ভিত্তিক নানা নির্দেশনা এবং স্থানীয় শিল্প প্রতিষ্ঠানের ঘনিষ্ঠ সহযোগিতার  সুবিধা ভোগ করে। অনেক সুপরিচিত কর্পোরেশন ব্রাউনশোয়াইখ  এবং পার্শ্ববর্তী অঞ্চলসমূহে অবস্থিত, যেমনঃ ইন্টেল, ভক্সওয়াগেন,  সিমেন্স এবং ফ্যাশন কোম্পানি নিউ ইয়র্কার।

ক্যাথেড্রাল

ক্যাথেড্রাল

ব্রাউনশোয়াইখ শহরে বসবাসঃ 

এর মধ্যযুগীয় শহরের কেন্দ্রস্থল জেলার সঙ্গে, ব্রাউনশোয়াইখ তার ইতিহাস ও ঐতিহ্য নিয়ে খুবই সচেতন। ব্রাউনশোয়াইখের ছাত্র জীবন খুবই বৈচিত্র্যময় এবং আন্তর্জাতিক। এই শহর সাংস্কৃতিক দিক দিয়ে খুবই সমৃদ্ধ। Herzog Anton Ulrich Museum  জার্মানির প্রাচীনতম জাদুঘরগুলোর একটি এবং এটি Vermeer এবং Rubens এর প্রচুর ঐতিহাসিক-শিল্পকর্মের সংগ্রহের জন্য পরিচিত। এছাড়াও আপনার  Braunschweigisches Landesmuseum জাদুঘরেও যাওয়া উচিৎ, এখানে আপনি শহরের ইতিহাস সম্পর্কে আরও জানতে পারবেন।

ব্রানসাইদিসুজ মিউজিয়াম

ব্রানসাইদিসুজ মিউজিয়াম

থিয়েটারপ্রেমীরা বিশেষ করে LOT Theater  এ পারফরমেন্স উপভোগ করে, যা এ অঞ্চলের তরুণ, প্রতিভাবান অভিনেতাদের একটি মিলনস্থল। গ্রীষ্মের সময়, আপনি ‘Südsee’ (দক্ষিণ সাগর) ভ্রমণে যেতে পারেন। আপনি পার্কে রিল্যাক্স করতে পারেন এবং হ্রদে গোসল করতে পারেন। Okercabana Beach Club এ যেতে ভুলবেন না, এর যুক্তিসঙ্গত দামের জন্য ছাত্রদের মধ্যে এটি বিশেষভাবে জনপ্রিয়। ব্রাউনশোয়াইখের সক্রিয় রাত আপনার বিশ্ববিদ্যালয়ে দৈনন্দিন চাপ কমিয়ে দেবে। শহরে তিনটি জায়গা আছে যেখানে একসঙ্গে প্রচুর বার এবং ক্লাব রয়েছে। আপনি Magni  জেলার Altstadt Treff এ আপনার সন্ধ্যা শুরু করতে পারেন, সেখানে আপনি সুস্বাদু  Altbier punch খেতে পারেন। আপনি যদি ককটেল প্রেমী হন, তাহলে আপনাকে শহরের কেন্দ্রস্থলের পশ্চিম দিকে অবস্থিত Siebenschläfer  এ যেতে হবে। এরপর আপনি ‘Cult Quarter’ এ যেতে পারেন যেখানে , The Lindbergh Palace, 42° Fieber  এবং BrainKlub তে নিয়মিত পার্টি হয়। অধিকাংশ জায়গায় এন্ট্রি ফি চার্জ করে না এবং যদিও করে, তবে তা সাধারণত চার ইউরোর বেশি হয় না। আপনি ক্লাসের পরে বন্ধুদের সাথে যদি ড্রিংক করতে চান, তাহলে আপনাকে  Eastern Ring District  এ যেতে হবে যেখানে আপনি Blütenweg এর অনেক পাব পাবেন।

স্যান্ড্রা ফ্রেইডরিচস এর টিপসঃ

C1 Cinema  বড় পর্দায়  ‘Tatort’ দেখায় যা একটি দীর্ঘ চলমান জার্মান টিভি ক্রাইম সিরিজ এবং কোন চার্জ ছাড়াই এটি দেখা যায়! হাতে কোমল পানীয় এবং পপকর্ন নিয়ে সবাই এর ‘রহস্যময় গল্প’ নিয়ে জল্পনা-কল্পনা করে।

ফিলিস্তিনের  সামির সঙ্গে স্যান্ড্রা ফ্রেইডরিখস এর সাক্ষাৎকারঃ

২০ বছর বয়সী সামি মুস্তাফা TU Braunschweig বিশ্ববিদ্যালয়ে ফার্মেসী বিষয়ে অধ্যয়নরত।

ফিলিস্তিনের সামি মুস্তাফা

ফিলিস্তিনের সামি মুস্তাফা

স্যান্ড্রাঃ আপনি কেন ব্রাউনশোয়াইখে অধ্যয়ন করার সিদ্ধান্ত নেন?

সামিঃ আমি সবসময় জার্মানিতে অধ্যয়ন করার স্বপ্ন দেখেছি। আমি এই দেশের প্রতি মুগ্ধ ছিলাম, এমনকি যখন আমি ছোট ছিলাম তখন থেকে,  আমি নিশ্চিত ছিলাম যে কোনদিন আমি এখানে বসবাস করবো এবং অধ্যয়ন করবো। ডিগ্রী প্রোগ্রামগুলো খুবই উচ্চমানের এবংবিশ্ব স্বীকৃত। এবং এখানে বিমানে করে আসতে মাত্র সাড়ে চার ঘণ্টা সময় লাগে,যা আমার বাবা-মা এবং আমার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আমি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আগ্রহী হতে পারতাম কিন্তু দেশ থেকে খুব দূরে এবং শিক্ষার খরচ খুব ব্যয়বহুল হওয়ার কারণে হইনি।

স্যান্ড্রাঃ ব্রাউনশোয়াইখের কোন বিষয়টি আপনি সবচেয়ে বেশি পছন্দ করেন?

সামিঃ এখানে আপনার অবসর সময় উপভোগ করা খুব সহজ। আমি খেলতে পছন্দ করি এবং জিমে যেতে বা পার্কে ফুটবল খেলতে। মাঝে মাঝে আমি সাঁতার কাটতে যাই। আর আমি যদি রিল্যাক্স করতে চাই, আমি ব্রাউনশোয়াইখের কাছাকাছি হ্রদের পাশে হাঁটতে যাই। এখানে প্রকৃতি সত্যিই চমৎকার।

স্যান্ড্রাঃ আপনি কি মনে করেন ব্রাউনশোয়াইখ বিদেশী শিক্ষার্থীদের অধ্যয়ন করার  জন্য ভাল একটি জায়গা ?

সামিঃ ব্রাউনশোয়াইখ খুব বড়ও না আবার খুব ছোটও না। মাত্র কয়েক দিনের মধ্যেই আপনি শহরের সবকিছু চিনতে পারবেন-এটা আপনাকে বার্লিন বা মিউনিখে অভিভূত করবে না। এখানে কোর্সগুলো খুবই চমৎকার এবং অধ্যাপকরা বিদেশী শিক্ষার্থীদের সাথে খুবই আন্তরিক। আপনার তাদের প্রয়োজন হলে তারা আপনাকে সমর্থন এবং সাহায্য করবে।

স্যান্ড্রাঃ আপনি জার্মানিতে আসার প্রস্তুতি নেয়ার সময় কি কোন সমস্যার সম্মুখীন হয়েছিলেন ?

সামিঃ হ্যাঁ, ভিসার জন্য আবেদন করা একটি জটিল প্রক্রিয়া। প্রথমে আমাকে প্রমাণাদি প্রদান করতে হয়েছিল যে আমার প্রয়োজনীয় আর্থিক সম্পদ আছে, এবং তারপর আমাকে একটি ১৪০-ঘন্টার ভাষা কোর্স করতে হয়েছিল। এজন্য আমার জার্মানিতে আসার আগে সাত থেকে আট মাস সময় লেগেছিল।

স্যান্ড্রাঃ ব্রাউনশোয়াইখে প্রথমদিকে আপনার কোন সমস্যা হয়েছিল কি?

সামিঃ আমি মনে করি ভাষাগত বাধা আমার সবচেয়ে বড় সমস্যা ছিল। এটা ঠিক যে, আমি যে ভাষা কোর্স করেছিলাম তা আমার অনেক সাহায্য হয়েছে। কিন্তু এটা সম্পূর্ণ ভিন্ন জিনিস, ক্লাসে বা বাস্তব জীবনে বিদেশী ভাষায় কথা বলা। এখানে সবাই ইংরেজিতে কথা বলে না তাই আমাকে আমার জার্মান ভাষা আরও উন্নত করতে হয়েছিল। কিন্তু এখন সমস্যা হল পাশ করা।

পুরানো শহরের একটি ছবি

পুরানো শহরের একটি ছবি

স্যান্ড্রাঃ ব্রাউনশোয়াইখে  বসবাস করার ক্ষেত্রে কোন জিনিসটা আপনাকে  সবচেয়ে বেশি বিস্মিত করে ?

সামিঃ আমার জন্য, এখানে যানবাহন ব্যাবস্থা সত্যিই অস্বাভাবিক। আমি এর আগে কখনও ট্রামে ভ্রমন করি নি! এটা এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যাবার  জন্য দুর্দান্ত একটি উপায়। আমি এখানে সাইকেল চালানোর সুবিধা আবিষ্কৃার করি। ব্রাউনশোয়াইখ সমতল শহর কোন পাহাড় ছাড়া, তাই এটি সত্যিই মজার এবং আপনি সাইকেল চালিয়ে খুব মজা পাবেন।

স্যান্ড্রাঃ আপনি লেখাপড়া শেষ করার পর কি করার পরিকল্পনা করেছেন? আপনি জার্মানিতে থাকতে চান?

সামিঃ অবশ্যই! আমি আমার পড়াশোনার পরে জার্মানিতে কাজ শুরু করার পরিকল্পনা করছি এবং কয়েক বছরের জন্য থাকতে চাই। আমার এই জায়গাটা সত্যিই পছন্দের এবং শিক্ষার মানও চমৎকার!

স্যান্ড্রাঃ কিভাবে আপনি এ পর্যন্ত আপনার জার্মানি থাকার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করবেন ?

সামিঃ জার্মানিতে পড়াশোনা করা আমার জন্য বিস্ময়কর, কিন্তু আবার কঠিন। আপনি এখানে সফল হতে চান, তাহলে  আপনাকে কঠিন পরিশ্রম করতে হবে। এবং জার্মানরা তাদের সুখ্যাতি-সম্পন্ন  হওয়ার তুলনায় অনেক ভালো !

 

সুত্রঃ study-in.de

অনুবাদকঃ সাজেদুর রহমান, রাজশাহী।

Print Friendly