সাইকেল পাগলদের জন্য জার্মানী

 

জার্মানিতে সাইকেল নেই এমন ঘর বোধহয় হয়ইনা৷ ছেলে-মেয়ে, শিশু-বৃদ্ধ সবাই সময় এলে ঠিকই বেরিয়ে পড়েন সাইকেল নিয়ে৷ সেই সময়টা এসেছে আবার৷ শীত যাই যাই করে অবশেষে ‘চু-উ-উস’, মানে বিদায় বলেছে৷ সবাই বেরিয়ে পড়ছে সাইকেল নিয়ে৷

কোল থেকে নেমেই সাইকেলে

1

জার্মানিতে অনেক শিশু হাঁটতে শেখেনি, কিন্তু সাইকেল চালানো শিখে বসে আছে৷ এ দেশে তো কোলের শিশু ভালো করে হাঁটা শুরুর আগেই মা-বাবার সঙ্গে বেরিয়ে পড়ে দু চাকার মিনি সাইকেল নিয়ে, সাইকেলে প্যাডেল মারা না শিখে উপায় আছে! শিশুদের বয়স ৮-৯ হলে তাদের স্কুলে চলে আসে পুলিশ৷ ভয় দেখাতে নয়, ‘বাইসাইকেল লাইসেন্স’ প্রদানের কর্মসূচিতে আনন্দ করতে করতে সাইকেল চালানোর পরীক্ষা নিতে আর রাস্তায় চলাফেরার নিয়ম শেখাতে৷

‘সাইকেলের রাজধানী’ ম্যুনস্টার

2

দেশের রাজধানী বার্লিন, কিন্তু জার্মানিতে সাইকেলের রাজধানী উত্তর-পশ্চিমের শহর ম্যুনস্টার৷ ম্যুনস্টার আসলে সাইকেল চালানোর স্বর্গরাজ্য৷ শহরে মানুষের চেয়ে সাইকেল বেশি৷ বেশ কিছু রাস্তায় একমাত্র বাহন সাইকেল৷ সম্প্রতি এক জরিপে জার্মানির সবচেয়ে বেশি সাইকেল-বান্ধব শহর নির্বাচিত হয়েছে ম্যুনস্টার৷ দ্বিতীয় হয়েছে কার্লসরুয়ে এবং তৃতীয় হয়েছে ফ্রাইবুর্গ৷ রাজধানী বার্লিন হয়েছে ত্রিশতম!

সব জায়গায় সাইকেল

3

জার্মানিতে এমন জায়গা পাওয়া দুষ্কর যেখানে সাইকেল চালিয়ে যাওয়া যাবেনা৷ সাইকেল চালানোর জন্য সারা দেশেই রয়েছে আলাদা রাস্তা৷ পাহাড় দেখতে যাবেন? নাকি গহীন বন? নাকি গ্রামের সবুজ প্রান্তর ডাকছে আপনাকে? কোনো সমস্যা নেই৷ আগে স্থির করুন কোথায় যেতে চান, তারপর ব্যাগ গুছিয়ে বেরিয়ে পড়ুন সাইকেল নিয়ে…৷

পথে বাধা পথচারী!

4

সাইকেল চালানোর জন্য রয়েছে আলাদা রাস্তা৷ হাঁটার রাস্তাও আলাদা৷ তারপরও অনেকেই ভুল করে উঠে পড়েন সাইকেলের রাস্তায়৷ সাইকেল আরোহীদের অনেকে খুব চটে যান তখন৷ নিয়মিত যাঁরা সাইকেল চালান, তাঁরা অবশ্য বোঝেন এমন হতেই পারে, আর বোঝেন বলে মাথাটা ঠান্ডাই রাখেন৷

সাইকেল চালানোর পোশাক-আশাক

5

জার্মানিতে যাঁরা নিয়মিত সাইকেল চালান, তাঁরা কিন্তু সাইক্লিংয়ের বিশেষ পোশাক পরে নিতেও ভোলেন না৷ অনেক দূরে কোথাও যেতে চাইলে এবং স্বচ্ছন্দে সাইকেল চালাতে চাইলে যথোপযুক্ত পোশাকটা কিন্তু দরকারও!

মাতাল দূরে থাকো….

6

জার্মানিতে অ্যালকোহল পান করে গাড়ি তো চালানো যায়ইনা, এমনকি মাতাল হয়ে বাইসাইকেল চালানোও নিষেধ৷ সুতরাং, মাতাল সাবধান!

বড় সাইকেল ছোট করে নিন…

7

ট্রাম এবং ট্রেনেও সাইকেল তোলার ব্যবস্থা থাকে৷ তবে গরমের দিনে ভিড়ের মধ্যে ট্রাম বা ট্রেনে সাইকেল নিয়ে ঢুকে পড়লে কখনো কখনো বিব্রত হতে হয়৷ অনেকে বিরক্ত হয়ে তাকান৷ কেউ কেউ দু কথা শুনিয়ে দেয়ার সুযোগও ছাড়েননা৷ এ পরিস্থিতি এড়ানোর জন্য অনেকেই কিনে নেন ‘ফোল্ডিং সাইকেল’৷ ট্রেন বা ট্রামে ওঠার আগে সাইকেলটা গুটিয়ে নিলেই হলো, কারো কিছু বলার সুযোগই থাকেনা তখন৷

 

সংকলনঃ শফিকুর রহমান

সুত্রঃ ডয়েচ ভেলে বাংলা

Print Friendly, PDF & Email