উল্‌ম বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশি শিক্ষার্থী

 

জার্মানির দক্ষিণাঞ্চল দিয়ে প্রবাহিত ডোনাউ নদীর তীর ঘেঁষে গড়ে উঠা  নৈসর্গিক সৌন্দর্যের শহর উল্‌ম। বাডেন- ভুর্টেমবার্গ অঙ্গরাজ্যে অবস্থিত এই শহরের জনসংখ্যা প্রায় ১২০,০০০।

এ শহরেই জন্মগ্রহণ করেছিলেন দুনিয়ার খ্যাতনামা বিজ্ঞানী আইনস্টাইন।   ইতিহাস ও ঐতিহ্যে সমৃদ্ধ এই শহরের একপাশে পাহাড়ের পাদদেশে মনোরম প্রাকৃতিক পরিবেশে ১৯৬৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় উল্‌ম বিশ্ববিদ্যালয়।  পর্যাপ্ত গবেষণা সুবিধা আর উন্নত শিক্ষা কার্যক্রমের কারণে এটি অতি অল্প সময়ে স্থান করে নেয় জার্মানির প্রথম সারির বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায়। বর্তমানে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ৯৫০০ যার মধ্যে বিদেশি শিক্ষার্থী রয়েছে প্রায় ১৫০০ জন। বিশ্ববিদ্যালয়ের অদূরে গড়ে উঠেছে একটি সাইন্স পার্ক যেখানে নকিয়া, সিমেন্স, ডাইমলারের মত  বিখ্যাত কোম্পানি তাদের গবেষণাকার্য পরিচালনা করে। একাডেমিক শিক্ষা কার্যক্রমের সাথে ইন্ডাস্ট্রিয়াল রিসার্চের (R&D) সন্নিবেশ এখানে আধুনিক শিক্ষার একটি কার্যকর সমন্বয় ঘটিয়েছে ।

Universität Ulm logo

 

উল্‌মে ধীরে ধীরে বাড়ছে বাংলাদেশি ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা। বর্তমানে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদে প্রায় ৩০ জনের মত বাংলাদেশি অধ্যয়নরত। এখানে প্রাক্তন  বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের  রয়েছে বিশেষ সাফল্য। এই  বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্যুনিকেশান টেকনোলজি থেকে সর্বোচ্চ গ্রেড(১.০) নিয়ে পাশ করেছেন বাংলাদেশের মোহাম্মদ জারেয মিয়া যা ১৯৯৮ সাল থেকে শুরু হওয়া কম্যুনিকেশান টেকনোলজির ইতিহাসে  একমাত্র । জারেযের মতে ভাল রেজাল্টের জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে প্রথম দিন থেকেই। বুয়েট এই বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্টনার বিশ্ববিদ্যালয়। এরই ফলশ্রুতিতে বুয়েট থেকে এখানে শিক্ষা বৃত্তি নিয়ে আসার সুযোগ রয়েছে । এ বছর আইনস্টাইন স্টাইপেনডিয়াম বৃত্তি নিয়ে পড়তে এসেছেন বুয়েটের  ছাত্র লাল মোহাম্মদ।

ক্লাস, পড়ালেখার পাশাপাশি একটি সৌহার্দপূর্ণ বাংলাদেশি সম্প্রদায় গড়ে উঠেছে এখানে। সময় সুযোগ পেলেই গল্প, ফুটবল খেলা কিংবা জাতীয়  ইস্যুতে একত্রিত হতে দেখা যায় সকলকে। সম্প্রতি  শাহবাগের সাথে সংহতি প্রকাশে তীব্র শীত উপেক্ষা করে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে জড় হয় অধিকাংশ বাংলাদেশি। বিভিন্ন ধরনের প্ল্যাকার্ড হাতে তাঁরা একাত্মতা প্রকাশ করে শাহবাগ আন্দোলনের সাথে।

ডোনাউ নদীর তীরে গল্পে, আড্ডায় বিকেলের সূর্য ঢলে পড়ে, ধীরে ধীরে অন্ধকার নামে। তখনও কিছু স্বপ্নময় চোখ মনের কোণে বহু দূরের এক সমৃদ্ধ বাংলাদেশের ছবি এঁকে যায়।

– শামসুর রহমান, উলম

Print Friendly